• নেশনস কাপ
  • " />

     

    • নেশনস কাপ

    "রিয়াল মাদ্রিদ হারলে দোষ হয় শুধু বিদেশীদের"

    তাঁর অধীনেই নিজেদের ফুটবলীয় ইতিহাসের সেরা সাফল্যটা পেয়েছে ক্রোয়েশিয়া। তারুণ্যের চেয়ে অভিজ্ঞতায় বেশি ভরসা রেখে ক্রোয়াটদের নিয়ে গিয়েছিলেন বিশ্বকাপের ফাইনালে। শিরোপা জিততে না পারলেও নিজেকে ঠিকই কিংবদন্তীদের কাতারে নিয়ে গেছেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ দালিচ। তাঁর অধিনায়ক লুকা মদ্রিচই হয়েছিলেন বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলার। মাসব্যাপী টুর্নামেন্টের পরও অবসর মেলেনি মদ্রিচের, নেমে পড়তে হয়েছে ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের মাঝমাঠ সামলাতে। ফর্মটা ঠিক আগের মত না হওয়ায় বেশ সমালোচনাও সইতে হয়েছে ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলারকে। কিন্তু দালিচ মনে করেন, মদ্রিচের প্রতি অবিচারই করেছে রিয়াল। এমনকি ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নরা হারলে কেবল বিদেশী ফুটবলারদেরই দোষ হয়- এমনটাই মানেন দালিচ।

     

     

    শুধু মদ্রিচ নন, মাদ্রিদ খারাপ খেলায় এই মৌসুমে বলির পাঁঠা হতে হয়েছে জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুসকেও। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে গ্যারেথ বেলের দুয়ো শোনা তো যেন রুটিনই হয়ে গেছে গত কয়েক মৌসুম ধরে। দালিচের ক্ষোভটা এখানেই, "বিশ্বকাপের পরপরই ক্লাব ফুটবলে যোগ দেওয়া কারও কাছ থেকে আপনি সেরাটা আশা করতে পারেন না। লুকা রিয়ালকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতিয়েই বিশ্বকাপে গিয়েছিল। সেখান থেকে ফিরেই আবার নেমেছে ক্লাবের হয়ে। তাদের বোঝা উচিত যে সে-ও মানুষ। তাঁর প্রতি এসব সমালোচনা আসলেই উচিৎ নয়। শুধু সে নয়, রিয়াল হারলে সবসময়ই দোষটা বিদেশী ফুটবলারদেরই হয়। তবে যে যা-ই বলুক, তাতে কিছুই আসে যায় না। লুকা এখনও বিশ্বের সেরা ফুটবলার।"