• ক্রিকেট

"স্পিনে খারাপ খেললে বাংলাদেশে আসাই উচিত না"

 

চট্টগ্রাম টেস্টে মোস্তাফিজুর রহমান খেলেছিলেন, কিন্তু উইকেট পাননি একটিও। মিরপুর টেস্টে তো তাঁকে দলেই নেয়নি বাংলাদেশ, খেলিয়েছে চার স্পিনার। দুই টেস্ট মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪০ উইকেটই নিয়েছেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। সাকিব-মিরাজ-তাইজুলদের ঘূর্ণিতে কুপোকাত ক্যারিবিয়ানরা, দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে হেরেই হয়েছে হোয়াইটওয়াশ। সাবেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান ও ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকর বলছেন, যেসব দল স্পিন ভালো খেলতে পারে না, তাঁরা যেন বাংলাদেশ সফরে না আসে!

ঘরের মাঠে বরাবরই বাংলাদেশের প্রধান অস্ত্র স্পিন। ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া সবাই বাংলাদেশ সফরে হিমশিম খেয়েছে স্পিনারদের সামলাতে। তাদের বিপক্ষে স্পিনারদের কল্যাণেই নিজেদের প্রথম টেস্ট জিতেছিল বাংলাদেশ। গত মাসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজেও স্পিনারদের আধিপত্য দেখা গেছে ভালোভাবেই।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তো স্পিনারই নিয়েছেন সবকয়টি উইকেট, গড়েছেন নতুন রেকর্ডও। মিরাজ-সাকিব-তাইজুলদের সামলানোর কোনো উপায়ই যেন খুঁজে পাননি ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানরা।  গতকাল একদিনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ হারিয়েছে ১৫ উইকেট! প্রথমবারের মতো প্রতিপক্ষকে ফলো-অন করিয়েছে বাংলাদেশ, জিতেছে ইনিংস ব্যবধানেও, এই কৃতিত্বটাও স্পিনারদেরই। কয়েকমাস আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়ে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার বদলাটাও নেওয়া হয়ে গেছে মিরাজদের। বাংলাদেশের হয়ে টেস্টে ম্যাচসেরা বোলিংয়ের নিজের রেকর্ডটাও ভেঙ্গেছেন মিরাজ। 

কালকের ম্যাচের পর মাঞ্জরেকর এক টুইটে বলেছেন, বাংলাদেশের মাটিতে তাদের স্পিন আক্রমণ থেকে বাঁচার কোনো উপায় নেই সফরকারী দলের, ‘আপনি যদি স্পিনে ভালো না হন, তাহলে বাংলাদেশে না যাওয়াই ভালো। তাদের এখন চারজন ভালো স্পিনার আছে। এই স্পিন আক্রমণ থেকে বাঁচার কোনো উপায় নেই।’

বাংলাদেশ সফর করার আগে উপমহাদেশের বাইরের দলগুলো নিশ্চয়ই মাঞ্জরেকরের উপদেশটা মাথায় রাখবে!