• ফুটবল

লিভারপুল-চেলসির দুইরকম রাত

শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির ওপর চাপটা বজায় রাখার জন্য জয়ের বিকল্প ছিল না তাদের সামনে। বার্নলির বিপক্ষে পিছিয়ে পড়ে কাজটা একটু কঠিনই হয়ে গিয়েছিল লিভারপুলের জন্য। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। বার্নলিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রইল লিভারপুল।

ঘরের মাঠে প্রথমার্ধে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি বার্নলি। অল্প কিছু গোলের সুযোগ এসেছিল লিভারপুলের সামনে। ২৯ মিনিটে ভ্যান ডিকের হেড ঠেকিয়ে দেন জো হার্ট। ৩৯ মিনিটে ন্যাবি কেইতাকেও হতাশ করেন তিনি।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধার বাড়ায় দুই দলই। ৪৭ মিনিটে ড্যানিয়েল স্টারিজের শট ঠেকিয়ে দেন হার্ট। দুই মিনিট পর ম্যাচের প্রথম সুযোগ পায় বার্নলি, অ্যাশলি বার্নসের দারুণ এক শট বাঁচিয়ে দেন অ্যালিসন বেকার। ৫৪ মিনিটে অ্যালিসন আর ঠেকাতে পারেননি জ্যাক কর্কের শট। অ্যালিসনকে বোকা বানিয়ে বার্নলিকে এগিয়ে দেন কর্ক। পিছিয়ে পড়া লিভারপুল অবশ্য ম্যাচে ফিরতে বেশি সময় নেয়নি। ৬২ মিনিটে সমতা আনেন জেমস মিলনার। ডিভোক অরিগির বাড়ান বলে গোল করেন মিলনার। সাত মিনিট পর লিভারপুলকে লিড এনে দেন রবার্তো ফিরমিনো। ভ্যান ডিকের নেওয়া সেট পিস থেকে বক্সের ভেতর বল পেয়ে হার্টকে পরাস্ত করেন। 

৮০ মিনিটে সমতায় ফিরতে পারত বার্নলি, অ্যাশলি ওয়েস্টউডের শট অ্যালিসন ফিরিয়ে দিলে সেটা হয়নি। ৮২ মিনিটে গোলের সুযোগ নষ্ট করেন সালাহ। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে গোল করে লিভারপুলের জয় নিশ্চিত করেন জেরদান শাকিরি। পাল্টা আক্রমণ থেকে সালাহর বাড়ান বলে গোল করতে ভুল করেননি তিনি। ১৫ ম্যাচ শেষে লিভারপুলের পয়েন্ট ৩৯। সিটির চেয়ে দুই পয়েন্ট পিছিয়ে আছে তাঁরা।

এদিকে লিভারপুল যখন পিছিয়ে পড়েও জিতেছে, চেলসির ম্যাচে হয়েছে উল্টো কাহিনী। উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে এগিয়ে গিয়েও হারতে হয়েছে চেলসিকে। ১৮ মিনিটে রুবেন লফতাস চিকের ২৫ গজ দূর থেকে নেওয়া শটে এগিয়ে যায় চেলসি। ৩২ মিনিটে এডেন হ্যাজার্ড লিড বাড়ানোর সুযোগ নষ্ট করেন। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৯ মিনিটে সমতা ফেরান রাউল হিমেনেজ। মরগান গিবসের বাড়ান বলে তাঁর নেওয়া শট ঠেকাতে পারেননি প্রথমার্ধে অনেকটাই অলস বসে থাকা আরজাবালাগা।

 

 

সমতা আনার চার মিনিট পরেই চেলসিকে হতাশায় ডুবিয়ে এগিয়ে যায় উলভস। ম্যাট দোহার্টির পাসে বক্সের ভেতর বল পেয়েছিলেন ডিয়েগো জতা। ছয় গজ দূর থেকে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি। পিছিয়ে পড়ে ম্যাচে ফেরার অনেক চেষ্টাই চালিয়েছে চেলসি। শেষ পর্যন্ত আর গোল আসেনি। এই হারে ১৫ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে নেমে গেল চেলসি।

চেলসির হারের রাতে জিতেছে টটেনহাম। সাউদাম্পটনকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে তাঁরা। হ্যারি কেইন, লুকাস মউরা ও হিউ মিন সনের গোলে ৩-০ তে এগিয়ে যায় টটেনহাম। ৯৩ মিনিটে সান্ত্বনাসূচক গোল করেন সাউদাম্পটনের চার্লি অস্টিন। ১৫ ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে তাঁরা উঠে এসেছে তৃতীয় স্থানে।

অন্য ম্যাচে লেস্টার সিটির মুখোমুখি হয়েছিল ফুলহাম। কিছুদিন আগেই ফুলহামের দায়িত্ব নিয়েছিলেন সাবেক লেস্টার কোচ ক্লদিও রানিয়েরি। সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে এগিয়ে গিয়েছিল রানিয়েরির ফুলহামই। ৪২ মিনিটে আবুবকর কামারার গোলে এগিয়ে যায় ফুলহাম। তবে ৭৪ মিনিটে জেমস ম্যাডিসনের গোলে সমতায় ফেরে লেস্টার। আর গোল না হওয়ায় ১-১ গোলের ড্রতেই শেষ হয় ম্যাচ।