• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />

     

    • ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯

    'ঘরের মাঠের বাড়তি সুবিধা পাবে না ইংল্যান্ড'

    সব বিশ্লেষকদের মুখেই শোনা গেছে কথাটা। ঘরের মাঠে এবারের বিশ্বকাপে ফেভারিট এউইন মরগানের ইংল্যান্ডই। পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজেও তাঁরা প্রমাণ করেছেন, নিজেদের মাটিতে তাদের হারানোটা খুব কঠিনই হবে। এর সাথে যোগ হবে ঘরের মাঠের দর্শকের সমর্থনও। শেষ মুহূর্তে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পাওয়া ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চার অবশ্য এমনটা মানতে নারাজ। আর্চারের মতে, নিজেদের মাটিতে বিশ্বকাপ হলেও কোন বাড়তি সুবিধা পাবে না ইংল্যান্ড।

     

     

    ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বরে আছে ইংল্যান্ড। গত চার বছরে তাদের পারফরম্যান্সের গ্রাফটাও ঊর্ধ্বমুখী। ব্যাটিং, বোলিং দুই বিভাগেই মরগানের দল যথেষ্ট শক্তিশালী। সাথে এবার যোগ হবে ঘরের মাঠে খেলাও, দর্শকের বড় অংশই থাকবেন তাদের সমর্থনে।

    আর্চার অবশ্য বলছেন, বিশ্বকাপে ঘরের মাঠের বাড়তি সুবিধা কাজে লাগবে না ইংল্যান্ডের, ‘ঘরের মাঠের বাড়তি সুবিধা বলে বিশ্বকাপে কিছু থাকবে না। আমরা কার্ডিফে খেলেছি, সেখানে প্রতিপক্ষের অনেক সমর্থক ছিল। লিডসেও একই অবস্থা হয়েছিল, আমাদের সমর্থকদের সমান সমর্থক ছিল অন্য দলেরও। ভারতের সাথে ম্যাচে তো আমাদের চেয়ে তাদের সমর্থকই বেশি হবে! নিজেদের মাঠে খেলা হওয়ায় বাড়তি সুবিধা তো অবশ্যই চাইবো, তবে এটা না পেলেও যেন খেলায় প্রভাব না পড়ে সেটাই আমাদের লক্ষ্য থাকবে। মাঠে আমরা কী করব সেটাই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার, দর্শক নিয়ে ভাবছি না।’

    অনেক নাটকের পর বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন আর্চার। পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলেছেন মাত্র দুটি ওয়ানডে, কাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেও ছিলেন না প্রথম একাদশে। পরবর্তীতে মার্ক উডের ইনজুরির কারণে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। খুব বেশি সুযোগ না পেলেও হতাশ হচ্ছেন না, ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ জেতার জন্য মুখিয়ে আছেন আর্চার, ‘কোনকিছু নিয়ে আফসোস নেই। বছরজুড়েই অনেক ক্রিকেট খেলেছি। ইনজুরি থেকেও দূরে ছিলাম। বিশ্বকাপেই সব মনোযোগ আমার। আশা করি এবার শিরোপা জিততে পারব আমরা। কখনোই বিশ্বকাপ জেতা হয়নি আমাদের, নিজেদের মাটিতে জেতার চেয়ে ভালো জায়গা আর নেই।’