• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    দুয়ো শুনে ফিরলেন নেইমার, ম্যাচ জেতালেন, দুয়ো শুনেই মাঠ ছাড়লেন

    লিগ ওয়ানে স্ট্রাসবার্গের বিপক্ষে ইনজুরি সময়ে দুর্দান্ত এক গোল করে পিএসজিকে জিতিয়েছেন নেইমার। গোলের পর উদযাপন করেছেন সতীর্থদের সঙ্গে। প্রাক ডি প্রিন্সেসে সমর্থকেরা তাকে দুয়ো দিয়ে গেছেন পুরোটা সময়। গোলের পর দুয়ো মিলিয়ে গেছে উল্লাসে, কিন্তু থামেনি। নেইমার ম্যাচ শেষে বলেছে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে কিছুই বলার নেই তার,  এভাবেই তিনি পিএসজির হয়ে খেলে যেতে চান।

    বার্সেলোনায় সম্ভাব্য দলবদল ভেস্তে যাওয়ার পর নতুন মৌসুমে প্রথমবারের মতো মাঠে নেমেছিলেন নেইমার। এর আগে পিএসজি খেলেছে ৫ ম্যাচ। কোনো ম্যাচেই দলে ছিলেন না তিনি। নেইমারের দলে ফেরার দিনে সব আকর্ষণ  হয়ে ছিলেন তিনিই। স্টাসবুর্গের বিপক্ষে পুরোটা সময় ধুঁকতে ধুঁকতে শেষে গিয়ে সেই নেইমারই জিতিয়েছেন ম্যাচ। বাম দিক থেকে আসা ক্রসে শরীর দারুণ ভাবে বাতাসে ভাসিয়ে দিয়ে দুর্দান্ত এক ওভারহেড কিকে গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান। এর কিছুক্ষণ পর আরও বল জালে জড়িয়েছিলেন, তবে ভিএআরে সেই গোল বাতিল হয়েছে।

    ম্যাচশেষে নেইমার বলেছেন, "সমর্থকদের উদ্দেশ্যে আমার কিছু বলার নেই। আমি জানতাম এটা কঠিনই হবে। তারা যদি আমাকে দেখে চেঁচাতে চায় তাহলে সেটার অধিকার তাদের আছে। তাদের যদিও আমাকে নিয়ে এতো মাথা ঘামানো উচিত না। দল নিয়ে ভাবা উচিত, ওটাই গুরুত্বপূর্ণ। এখন থেকে আমি হোম ম্যাচও অ্যাওয়ে ম্যাচের মতো করেই খেলব।"

     

     

    পিএসজির মাঠে সমর্থকেরা নেইমার বিরোধী ব্যানার নিয়ে হাজির হয়েছিলেন। ব্যানারে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজও করা হয়েছে নেইমারকে। এর আগে মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই নেইমারকে ঘিরে এমন অসোন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন পিএসজি আল্ট্রারা। নেইমারের ফেরার দিনে সেই পরিস্থিতি আরেকবার দেখেছে প্রাক ডি প্রিন্সেস।

    মাঠে ঢোকা থেকে শুরু করে নেইমারের প্রতিটি টাচ, বাইরে দিয়ে মারা শট, কর্নারে দুয়ো দিয়ে গেছেন তারা। প্যারিসের মেয়র অ্যানে হিডালগো আগেই নেইমারকে সতর্ক করে রেখেছিলেন এমন কিছুর ব্যাপারে। তাড়াতাড়ি ফর্মে ফেরার তাগাদাও দিয়েছিলেন তিনি নেইমারকে। প্রথম ম্যাচেই অবশ্য নিজের মেধাটা আরেকবার মনে করিয়ে দিলেন তিনি পুরো বিশ্বকে।

    স্ট্রাসবুর্গের বিপক্ষে নতুন গোলরক্ষক কেইলর নাভাসও ছিলেন দলে। মাউরো ইকার্দি ও অ্যান্ডার হেরেরা বদলি হিসেবে নেমে পিএসজির জার্সিতে প্রথম ম্যাচ খেলেছেন।  চ্যাম্পিয়নস লিগে পরের ম্যাচে পিএসজির প্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদ। ঘরের মাঠে অবশ্য সে ম্যাচে নেইমারকে পাচ্ছে না তারা। রেফারির সঙ্গে অসংলগ্ন আচরণের দায়ে  তিন ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা কাটাতে হবে নেইমারকে।