• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    ১৬ মাস পর ঘরের মাঠে লিগ ম্যাচ হারল পিএসজি

    ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান

    পিএসজি ০-২ রেইমস


    ঘরের মাঠে শেষ কবে লিগ ম্যাচ হেরেছিল পিএসজি, সেটা হয়তো তাদের সমর্থকরা ভুলতেই বসেছেন! দীর্ঘ ১৬ মাস পর নিজেদের মাঠে ফ্রেঞ্চ লিগের ম্যাচে হারের স্বাদ পেলেন নেইমাররা। রেইমসের কাছে ২-০ গোলে হেরেছে টমাস টুখেলের দল। এটি এই মৌসুমে লিগে পিএসজির দ্বিতীয় হার। 

    ২০১৮ সালের মে মাসে রেনের কাছে ২-০ গোলে হেরেছিল পিএসজি। এরপর ২২ বার ঘরের মাঠে খেলতে নেমে একবারও হারেনি তারা। ২০ ম্যাচে এসেছে জয়, ড্র হয়েছে অন্য দুই ম্যাচ। গতকালও শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণে রেইমস রক্ষণকে স্বস্তি দেননি নেইমার-চপু মটিংরা। ৬ মিনিটের মাথায় এরিক চপু মটিংয়ের শট ঠেকিয়ে দেন রাজকোভিচ। ২৭ মিনিটে নেইমারের ফ্রি কিক অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। 

    দুই মিনিট পরেই পিএসজিকে চমকে দিয়ে লিড নেয় রেইমস। মার্শাল মুনেতসির ক্রসে দারুণ এক হেডে কেইলর নাভাসকে পরাস্ত করেন হাসানে কামারা। প্রথমার্ধের কিছুক্ষণ আগে ইনজুরির কারণে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন চপু মটিং, তার বদলি হিসেবে নামেন ডি মারিয়া। 

    নেইমারের মাথায় হাত

     

    দ্বিতীয়ার্ধে পিএসজির হয়ে সমতাসূচক গোলটা প্রায় পেয়েই গিয়েছিলেন ডি মারিয়া। বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া তার বাঁ পায়ের শট দারুণভাবে ঠেকিয়ে দেন রেইমস কিপার। নির্ধারিত সময়ের চার মিনিট আগে নেইমারের পাসে বক্সের একটু বাইরে বল পেয়েছিলেন ডি মারিয়া। এবারও তাকে হতাশ করেন রাজকোভিচ। 

    ৯৪ মিনিটে পিএসজির কফিনে শেষ পেরেকটা ঠুকে দেন বুলায়ে দিয়া। থমাস ফকেটের বাড়ানো বলে দিয়ার দুর্দান্ত এক বাইসাইকেল কিক জালে জড়ালেই জয়ের উল্লাসে মেতে ওঠে রেইমস। 

    টানা ৪৪ ম্যাচ পর ফ্রেঞ্চ লিগের ম্যাচে কোনো গোল পেলো না পিএসজি। এই হারের পরেও ৭ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে পিএসজি। তবে সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকা অ্যাঞ্জার্স তাদের ঘাড়ের ওপর নিঃশ্বাস ফেলছে।