• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    পিএসজি সমর্থকদের সাথে আমার সম্পর্ক অনেকটা বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের মত: নেইমার

    গত গ্রীষ্মে বার্সেলোনায় ফেরার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করলেও নাছোড়বান্দা প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের জন্য স্পেনে ফেরা হয়নি নেইমারের। ২০১৯-২০ মৌসুমে পিএসজির হয়ে মাঠে ফেরার পর থেকে প্রতি ম্যাচেই নিজ সমর্থকদের থেকেই দুয়ো শুনেছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। কিন্তু বার্সার কথা ভুলে নেইমার এখন চান, পিএসজির হয়েই নিজেকে প্রমাণ করতে। সমর্থকদের ভালবাসাও ফিরে পেতে চান তিনি। প্যারিসের সমর্থকদের সাথে তার সম্পর্ককে আর দশটা বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের সম্পর্কের সাথেই তুলনা করেছেন তিনি।

    সমর্থকদের ভালবাসা, আস্থা ফিরে পাওয়ার কাজটা অবশ্য মাঠেই করছেন নেইমার। নতুন মৌসুমে খেলা চার ম্যাচে তিন গোল করেছেন তিনি; ঐ তিন ম্যাচই পিএসজি জিতেছে তার গোলেই। স্ট্রাসবার্গ, লিওঁ-র পর গত সপ্তাহে বোর্দোর বিপক্ষেও তার গোলেই জিতেছে পিএসজি। নেইমার মনে করেন;  মৌসুমের শুরুর চেয়ে এখন তার সাথে পিএসজি সমর্থকদের সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে বেশ কিছুটা, "মৌসুমের শুরুর দিকে তো প্রতি মিনিটেই দুয়ো শুনতাম। স্ট্রাসবার্গের বিপক্ষে ফেরার ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে গোল করে জিতিয়েছিলাম, কিন্তু তারপরও দুয়ো শুনেছিলাম। কিন্তু এখন সেটা কমেছে অনেকাংশেই। আমার মনে হয় তাদের (পিএসজি সমর্থক) সাথে আমার সম্পর্ক অনেকটা বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের মত।"

     

     

    "ঝগড়া হওয়ার পর সাধারণত বয়ফ্রেন্ড, গার্লফ্রেন্ডরা অনেকদিন কথা বলে না একে অপরের সাথে। তবে সময়ের সাথে ভালবাসা এবং যত্নের সাথে সবকিছু আবার আগের মতই স্বাভাবিক হয়ে যায়। পিএসজি সমর্থকদের সাথেও এমনটাই হয়েছে আমার। শুরুর দিকে তাদের দুয়ো শুনে ব্যথিত হয়েছিলাম, কিন্তু ঐ দুয়োই আমাকে ভাল করার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। এখন নিজের পারফরম্যান্স দিয়েই তাদের ভালবাসা এবং আস্থা ফিরে পেতে চাই।"

    অতীত ভুলে এখন পিএসজির কথা ভাবছেন নেইমার। জানিয়েছেন; প্রয়োজনে মাঠে ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নদের জন্য জীবন দিতেও রাজি তিনি, "পিএসজিকে শিরোপা জয়ে সাহায্য করতে আমি এসেছি। নিজের কাজটা সফলভাবেই করতে চাই। পিএসজির জন্য প্রয়োজনে মাঠেই জীবন দিতেও প্রস্তুত আমি; যাতে একসাথে আমরা সবাই-ই বিজয়ের উল্লাসে মাততে পারি।"