• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    গোল হজমের জন্য সহকারী রেফারিকেই দায়ী করছেন সোলশার-ডি গিয়া

    বুকায়ো সাকার বাড়ানো বল এলো এমিরিক অবামেয়াংয়ের পায়ে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড রক্ষণভাগ তখন হাত উঁচিয়ে অফসাইডের দাবি জানাচ্ছে। সহকারী রেফারিকে স্কট লেডজারও অফসাইডের সংকেত দিলেন পতাকা উঠিয়ে। এই ফাঁকেই ডি গিয়ার মাথার ওপর দিয়ে বল তুলে দিয়ে গোল করলেন অবামেয়াং। ইউনাইটেডের সেই হাসিটা অবশ্য বেশিক্ষণ থাকেনি। ভিএআরের সাহায্য নিয়ে গোলের বাঁশিই বাজিয়েছেন রেফারি কেভিন ফ্রেন্ড। ম্যাচ শেষে ইউনাইটেড কোচ ওলে গানার সোলশার ও গোলরক্ষক ডি গিয়া বলছেন, সহকারী রেফারি পতাকা না তুললে তারা আর্সেনালের বিপক্ষে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়তেন। 

    আর্সেনালের আবেদনের মুখে ভিএআরই নিলেন রেফারি

     

    এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত আর্সেনালের সাথে ড্র করে মাঠ ছেড়েছে ইউনাইটেড। ৭ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে দশম স্থানে। গত ৩০ বছরে এটি রেড ডেভিলদের সবচেয়ে বাজে শুরু।

    সোলশার বলছেন, সহকারী রেফারির কারণেই গোলটা হজম করেছে তার দলের রক্ষণ, ‘অ্যাশলি তো লাইন্সম্যানের দিকে তাকিয়ে হাত উঁচু করেছিল। সে সহকারী রেফারির পতাকা উঁচু করা দেখেই একটু অপ্রস্তুত হয়ে গিয়েছিল, নাহলে সে হয়তো অবামেয়াংকে আটকাতে পারত। সহকারী রেফারি গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে পতাকা উঠিয়েছেন। এটা রক্ষণে প্রভাব ফেলেছে। তিনি অপেক্ষা করতে পারতেন, তবে দিনশেষে এটা তার সিদ্ধান্ত। এটা আমাদের জন্য সান্ত্বনা হতে পারে না।’ 

    সোলশারের মতো ডি গিয়াও সহকারী রেফারির ওই সিদ্ধান্তে খুশি নন, ‘তার পতাকা ওঠানোতে আমরা কিছুটা বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছিলাম। তিনি পতাকাটা নামিয়ে রাখলেই হতো। ভিএআর তো ছিলোই অফসাইড কিনা সেটা দেখার জন্য। আমাদের আসলে ভুল থেকে শিক্ষা নিতে হবে। এটা বড় একটা ভুল ছিল। আমরা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা গোল হজম করেছি।’