• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    আবারও অন্তিম মুহূর্তে শেষ হাসি লিভারপুলের

    ৪ জানুয়ারি, ২০১৯। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটির হারের পর লিগে ২৭ ম্যাচ খেলেছিল লিভারপুল, হারেনি একবারও। অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে ম্যাচের ৮৭ মিনিট পর্যন্ত হারের আশঙ্কা জেঁকে ধরেছিল ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে; কিন্তু অন্তিম মুহূর্তের দুই গোলে দলকে উদ্ধার করেছেন অ্যান্ডি রবার্টসন এবং সাদিও মানে। শেষদিকের দুই গোলে সংগ্রামী জয়ে ভিলাকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল, সিটির সাথেই পয়েন্ট ব্যবধানটা ৬-এই থাকল তাদের।

    নিজেদের মাঠে লিভারপুলকে প্রথমার্ধে সমানে সমান টেক্কা দিয়েছে ভিলা। দুর্দান্ত রক্ষণে সালাহ-মানেদের রীতিমত পকেটবন্দিই করে রেখেছিল তারা। বিবর্ণ লিভারপুলকে পেয়ে প্রথমার্ধে লিডও নিয়েছে ভিলা। ২১ মিনিটে জন ম্যাকগিনের ক্রস থেকে অ্যালিসন বেকারকে পরাস্ত করেন ত্রেজেগে। রিপ্লেতে ত্রেজেগের অফসাইডে থাকা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও গোলের সিদ্ধান্তই জানিয়েছে ‘ভিএআর’। প্রথমার্ধে ভিডিও রেফারি বিতর্কে আবারও পড়তে হয়েছে ক্লপের দলকে।

     

     

    মানের ক্রস থেকে রবার্তো ফিরমিনো গোল করলেও অফসাইডে বাতিল হয় গোল; অবশ্য ফিরমিনোর অফসাইডে থাকা নিয়ে ধোঁয়াশাও আছে বেশ। দুই বিতর্কেরই ওপিঠ দেখা লিভারপুল প্রথমার্ধে আক্রমণে আর সুবিধা করতে পারেনি। পিছিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করতে হয়েছে তাদের। পিছিয়ে পড়ে প্রথমার্ধ শেষ করলেও হাল ছাড়েনি লিভারপুল। দ্বিতীয়ার্ধে ‘বাস পার্ক ট্যাকটিক্স’-এ খেলা ভিলার বিপক্ষে সুযোগও পেয়েছিল তারা, কিন্তু গোলরক্ষক টম হিটন ছিলেন দুর্দান্ত ফর্মে। সালাহ-মানেদের দুটি দারুণ প্রচেষ্টা অবিশ্বাস্যভাবে ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি।

    অবশ্য আক্রমণের ধার বাড়ানো লিভারপুলের বিপক্ষে প্রতি-আক্রমণে জয় নিশ্চিত করার সুযোগ পেয়েছিল ভিলা, কিন্তু গোলমুখে তালগোল পাকিয়ে ফেলে শটই নিতে পারেনি তারা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য সেজন্য চড়ামূল্যই দিতে হয়েছে তাদের। ৮৭ মিনিটে মানের ক্রস থেকে হেডে হিটনকে পরাস্ত করেন রবার্টসন। লিভারপুল সমতায় ফিরেছিল তার গোলে, দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে দলকে অবশেষে লিড এনে দেন মানেই। রাইটব্যাক ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ডের ক্রসে দুর্দান্ত হেডে জয় নিশ্চিত করেন লিভারপুল ফরোয়ার্ড। প্রথমার্ধে ডাইভ দিয়ে হলুদ কার্ড দেখা মানেই শেষ পর্যন্ত পথ দেখালেন ‘অল রেড’দের।