• আফগানিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ
  • " />

     

    চেজ-হোপে আফগানদের সহজেই হারালো ওয়েস্ট ইন্ডিজ

    স্কোর

    আফগানিস্তান ৪৫.২ ওভারে ১৯৪ (রহমত ৬১, ইকরাম ৫৮, আফগান ৩৫; হোল্ডার ২/২১, চেজ ২/৩১) 

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪৬.৩ ওভারে ১৯৭/৩ (চেজ ৯৪, হোপ ৭৭*; মুজিব ২/৩৩)

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭ উইকেটে জয়ী 

     

    ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে লক্ষ্যটা খুব বড় ছিল না। ১৯৫ রান তাড়া করতে নেমেও অবশ্য ক্যারিবিয়ানদের জয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪৭ তম ওভার পর্যন্ত। বোলারদের দারুণ পারফরম্যান্সের পর রস্টন চেজ-শাই হোপের দুর্দান্ত এক জুটিই আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় এনে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। লক্ষ্মৌতে সিরিজের প্রথম ম্যাচে আফগানদের ৭ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে এগিয়ে গেলো কাইরন পোলার্ডের দল। 

    রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা একদমই ভালো হয়নি ক্যারিবিয়ানদের। পঞ্চম ওভারে ১২ রানের মাথায় ফেরেন এভিন লুইস। তিন ওভার পরেই আউট হন শিমরন হেটমেয়ার। আফগানদের শরীরী ভাষাই বলে দিচ্ছিল, অল্প পুঁজি নিয়েও ম্যাচে ভালোভাবেই ফিরে এসেছেন তারা। 

    রশিদ খানদের আনন্দটা স্থায়ী হয়েছে অল্প সময়ই। পরের ৩৫ ওভারে কোনো উইকেটের দেখা পায়নি আফগান বোলাররা। হোপ-চেজ জুটি মন্থর গতিতে ব্যাটিং করলেও উইকেট বিলিয়ে দিতে রাজি ছিলেন না। ১০ থেকে ২০ ওভারের মাঝে এই জুটি তুলেছে ৪৯ রান। পরের দশ ওভারে রানের গতি আরও কমেছে, উঠেছে ৩২ রান। রশিদদের হতাশায় ডুবিয়ে ধীরে ধীরে দলকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে গেছেন হোপ-চেজ। 

    ১৬৩ রানের জুটি গড়ার সময় হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছেন হোপ-চেজ দুইজনই। চেজ শেষের দিকে খানিকটা হাত খুলে খেললেও হোপ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ধীর লয়েই ব্যাটিং করেছেন। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৬ রান দূরে থাকতে প্যাভিলিয়নে ফিরয়ে হয় চেজকে। মুজিবুর রহমানের বলে বোল্ড হলে সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি চেজের। ১১ চারে সাজানো চেজের ৯৪ রানের ইনিংসটাই ততক্ষণে জয় নিশ্চিত করেছে দলের। চেজ ফিরলেও হোপ দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন। ১৩৫ বলে হোপ করেছেন ৭৭ রান, স্ট্রাইক রেট ছিল মাত্র ৫৭। ২১ বল হাতে রেখেই জয় পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। 

    দিনের শুরুতে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল আফগানরা। ১৫ রানের মাঝে দুই ওপেনারকে হারায় তারা। তৃতীয় উইকেটে রহমত শাহ ও ইকরাম আলি খিল দলের হাল ধরেন। ২০ ওভার ব্যাটিং করে দুইজন মিলে তোলেন ১১১ রান। রহমত-ইকরাম দুইজন এই সময় পেয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি। 

    রহমত-খিল জুটি বড় স্কোরের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল আফগানিস্তানকে। ২৭ তম ওভারে ৫৮ রান করা খিলকে রান আউট করেন হোপ। এরপরই শুরু হয় আফগান ব্যাটসম্যানদের যাওয়া আসার মিছিল। ৩২ রানের মাঝে পড়ে আরও তিন উইকেট। ঐ সময় ৬১ রান করে আউট হন রহমতও। 

    ১৫৮ রানে ৬ উইকেট হারানো আফগানদের লড়াই করার মতো স্কোর এনে দিয়েছেন আসগর আফগান। গুলবাদিন নাইবকে সাথে নিয়ে ৩৩ রানের জুটি করেন আফগান। ৩৫ রান করা আফগানকে রান আউট করেছেন হোল্ডার। শেষ পর্যন্ত ৪৬ তম ওভারে অলআউট হয় আফগানিস্তান।