• শ্রীলংকার পাকিস্তান সফর
  • " />

     

    পাকিস্তানে ফিরছে টেস্ট ক্রিকেট

    দশ বছর আগে শ্রীলংকা দলের বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই পাকিস্তানের মাটিতে হয়নি টেস্ট ম্যাচ। সেই শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই পাকিস্তানে ফিরছে টেস্ট ক্রিকেট। আগামী মাসে শ্রীলংকার বিপক্ষে দুটি টেস্ট ম্যাচের সূচি ও ভেন্যু চূড়ান্ত করেছে পিসিবি। 

    প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছিল, অক্টোবরে হবে টেস্ট সিরিজ, ডিসেম্বরে হবে ওয়ানডে। তবে টেস্টের ভেন্যু চূড়ান্ত করতে পারছিল না পিসিবি, তাই ওয়ানডেতে সিরিজই এগিয়ে আনা হয়। কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝে গত মাসে পাকিস্তানে ওয়ানডে সিরিজ খেলে গেছে শ্রীলংকা। যদিও নিরাপত্তা ইস্যুতে সেই সিরিজে দলের সাথে ছিলেন না সিনিয়র ক্রিকেটাররা।

    ওয়ানডে সিরিজের পর শ্রীলংকার কোচ রুমেস রত্নায়েকে বলেছিলেন, পাকিস্তান এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য পুরোপুরি নিরাপদ। লংকান ব্যাটসম্যান গুনাথিলাকাও বলেছিলেন এমনটাই। যারা ওয়ানডে খেলতে যাননি, তাদের টেস্টে সিরিজে পাকিস্তানে যাওয়ার আহবানও জানিয়েছিলেন তারা। 

    অনেক আলোচনার পর টেস্টে ভেন্যু হিসেবে রাওয়ালপিন্ডি ও করাচীকে চূড়ান্ত করেছে পিসিবি। ১১ ডিসেম্বর পিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। ১৯ ডিসেম্বর করাচী জাতীয় স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের শেষ টেস্ট। 

    পিসিবি ডিরেক্টর জাকির যান পাকিস্তানে টেস্ট ক্রিকেট ফেরায় দারুণ খুশি, ‘পাকিস্তানে টেস্ট ক্রিকেট ফেরাটা দারুণ ব্যাপার। শ্রীলংকাকে ধন্যবাদ এখানে টেস্ট খেলতে আসার জন্য রাজি হওয়ায়। আশা করি এই সিরিজের মাধ্যমে আমরা অন্য দেশকেও টেস্ট খেলতে আসার প্রস্তাব দিতে পারব। এখন যেহেতু সূচি চূড়ান্ত হয়ে গেছে, আমাদের সব মনোযোগ দুটি ম্যাচ আয়োজনের দিকেই থাকবে।’ 

    এদিকে শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী অ্যাশলি ডি সিলভা বলছেন, সব দেশই যেন ঘরের মাটিতে খেলতে পারে সেটাই তাদের চাওয়া, ‘ওয়ানডে সিরিজের পর আমরা সবকিছুতে সন্তুষ্ট হয়েই টেস্ট খেলার ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছি। আমরা বিশ্বাস করি সব দেশেই ঘরের মাঠে খেলার সুযোগ পাওয়া উচিত। আমরা যখন ক্রিকেটে নতুন তখন পাকিস্তান আমাদের অনেক সাহায্য করেছে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের প্রথম সিরিজে আমরা ড্র করেছি। এই সিরিজটাও জমজমাট হবে।’

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন