• অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান সিরিজ
  • " />

     

    ট্রিপল সেঞ্চুরিতে স্যার ডনকে ছাড়িয়ে গেলেন ওয়ার্নার

     

    স্লো মোশনে ভিডিওটা দেখলে আপনার মনে হবে, থ্রি হান্ড্রেড সিনেমার কোনো দৃশ্য দেখছেন। যোদ্ধা যেমন মাথা থেকে খুলে ফেলেন শিরস্ত্রাণ, ওয়ার্নার সেভাবে খুলে ফেললেন হেলমেট। অব্যক্ত চিৎকারে কিছু একটা বলনে ওয়েডকে, ততক্ষণে শুরু করেছে তার সেই ট্রেডমার্ক দৌড়। এবার সেটি একটু বেশিই লম্বা হলো, বিখ্যাত সে লাফের সময় গর্জনটাও হলো বেশি। অ্যাডিলেড ওভাল দাঁড়িয়ে তখন তাঁকে কুর্নিশ করছে। আর অন্যলোক থেকে হয়তো দেখছেন স্যার ডন ব্র্যাডম্যান। এই অ্যাডিলেডেই ২৯৯ রান করেছিলেন আজ থেকে ৮৮ বছর আগে। সেই অ্যাডিলেডে ট্রিপল সেঞ্চুরি করলেন তাঁরই আরেক স্বদেশী, ডেভিড ওয়ার্নার।

    ডাবল সেঞ্চুরির পরেই আসলে দুর্দান্ত খেলছিলেন। ২৯০ এর ঘরে পৌঁছানোর পরও স্নায়ুচাপের কিছুই ছিল না। ইফতেখারকে একটা চার মেরে পৌঁছালেন ২৯৬ রানে। এরপর এলেন আব্বাস, ওয়ার্নার পুলটা মিড উইকেট দিয়ে পাঠালেন বাউন্ডারিতে। গ্যালারিতে স্ত্রী ক্যান্ডিস ছিলেন, স্বামীর এই ইতিহাস দেখেছেন সরাসরি। পুরো অস্ট্রেলিয়া দল তখন দাঁড়িয়ে পড়েছে।

     

    ২০১৬ সালে সর্বশেষ টেস্টে ট্রিপল সেঞ্চুরি করেছিলেন ভারতের করুন নায়ার। এরপর ওয়ার্নার সেটি করলেন। সপ্তম অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে ৩০০ হলো ওয়ার্নারের, পাকিস্তানের বিপক্ষে যা চতুর্থ। আর আজহার আলীর পর দিবারাত্রির টেস্টে দ্বিতীয়। আর সিম্পসন, গেইল, শেওয়াগের পর চতুর্থ ওপেনার হিসেবে হলো এই কীর্তি।

    তবে চারশ করার সুযোগ পাননি ওয়ার্নার। ট্রিপলের পর দ্রুত রান তুলতে শুরু করে দিয়েছিলেন, ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন মার্ক টেলর আর স্যার ডনের ৩৩৪ রান। এরপরেই ইনিংস ঘোষণা করেন টিম পেইন, ৩৩৫ রানে অপরাজিত থেকে ড্রেসিংরুমে ফেরেন ওয়ার্নার।