• লা লিগা
  • " />

     

    কিক অফের আগে: ওয়ান্ডায় অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে ফিরছেন বার্সেলোনার গ্রিযমান

    কবে, কখন

    অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ-বার্সেলোনা

    লা লিগা ২০১৯-২০

    ২ ডিসেম্বর, রাত ২টা


    গত বছর বার্সেলোনা চাইলেও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ছেড়ে আসতে চাননি আঁতোয়া গ্রিযমান। আর গত গ্রীষ্মে রীতিমত বার্সেলোনার সাথে 'গোপন চুক্তি' সেরে ন্যু ক্যাম্পে পাড়ি জমিয়েছিলেন তিনি। গ্রিযমানকে দলে ভেড়ানো নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি দু’দলের মাঝে, অ্যাটলেটিকোর ত্রাণকর্তা এখন ‘লস রোহিব্লাঙ্কোস’ সমর্থকদের কাছে চক্ষুশূল। যদিও নতুন ক্লাব বার্সায়ও ফর্মটা ভাল যাচ্ছে না।

    ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানোতে যখন গ্রিযমান ফিরছেন, তখন আত্মবিশ্বাস তার তলানিতে। তার মতো না হলেও বার্সেলোনার অবস্থাও ভালো না। অ্যাটলেটিকোকে হারাতে না পারলে শীর্ষস্থানটাও হাতছাড়া হবে তাদের।

    ওয়ান্ডার এই সপ্তাহে শুধু অ্যাটলেটিকো নয়, বার্সা সমর্থকদের কাছেও নিজেকে প্রমাণ করতে চাইবেন গ্রিযমান। গত সপ্তাহে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে কাতালানদের হয়ে নিজের প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগ গোল পেয়েছিলেন। উসমান ডেম্বেলে প্রায় দু’মাসের জন্য মাঠের ছিটকে যাওয়ায় আপাতত হয়তো একাদশে জায়গা নিয়ে ভাবতে হবে না গ্রিযমানকে। প্রথম মৌসুমের অর্ধেক পথও পেরুননি বার্সার হয়ে, কিন্তু এরই মধ্যে তাদের থেকে শুনতে হয়েছে দুয়ো। গ্রিযমান তাই হয়তো নিজেও জানেন; অ্যাটলেটিকোর মাঠে বার্সার হয়ে ভাল কিছু করতে পারলে মূল একাদশে জায়গা এবং বার্সা সমর্থকদের আস্থা- দুটিই হয়তো পেয়ে যেতে পারেন তিনি।

    গ্রিযমানের মত এই মৌসুমে অ্যাটলেটিকো এবং বার্সেলোনার পারফরম্যান্সও আতশকাঁচের নিচে এসেছে একাধিকবার। নিজেদের মাঠে ইন্টার মিলান, ডর্টমুন্ডকে হারিয়ে দেওয়া বার্সা এই মৌসুমে পয়েন্ট হারিয়েছে মাঠে ওসাসুনা, লেগানেসের মাঠে। এখন পর্যন্ত নিজের সেরা একাদশ সম্পর্কে সন্দিহান বার্সা ম্যানেজার ভালভার্দে। উইংয়ে খেলায় নিজের সেরাটা দিতে পারছেন না গ্রিযমান।

     

     

    রক্ষণেও পিকে-লংলে-আলবাদের কেউই নেই ফর্মে। মাঝমাঠে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং ছাড়া বাকিদের চেনা ভার। সব মিলিয়ে বেশ চাপেই আছে বার্সা। এই মৌসুমে শুধুমাত্র মেসির জন্যই এখনও লা লিগার শীর্ষে আছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা- সেটা হয়তো মেনে নেবেন মেসির নিন্দুকেরাও। তবে অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে ম্যাচে আগে আত্মবিশ্বাসটা তুঙ্গেই থাকার কথা বার্সার ফরোয়ার্ডদের। ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে গোল করেছিলেন মেসি, গ্রিযমান, সুয়ারেজ তিনজনই। 

    বার্সার মত নিজেদের হারিয়ে খুঁজছে অ্যাটলেটিকো। বদলি হিসেবে হোয়াও ফেলিক্সকে আনতে নিজেদের ট্রান্সফার রেকর্ড ভেঙেছে অ্যাটলেটিকো। আলভারো মোরাতা, ফেলিক্সরা থাকলেও এই মৌসুমে গোল করতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে ডিয়েগো সিমিওনের দল।

    ১৪ ম্যাচ শেষে লিগে মাত্র ১৬ গোল করেছে অ্যাটলেটিকো; তাদের চেয়ে কম গোল করা দলগুলোর সবাই আছে লা লিগা টেবিলের তলানীতে। একমাত্র মোরাতা ছাড়া ফরোয়ার্ডদের সবাই-ই নিজেদের মেলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছেন এবার। গোল করার মত জয় পাওয়া নিয়েও হিমশিম খেতে হচ্ছে সিমিওনের দলকে। এই মৌসুমে মাত্র ১বার হেরেছে তারা, কিন্তু ড্র করেছে ৭ ম্যাচ। আগের মত তাই রক্ষণই এবার অ্যাটলেটিকোর মূলশক্তি। 

     

     

    মৌসুমের অন্যতম বড় ম্যাচের আগে রক্ষণে ইনজুরির সমস্যায় ভুগছে দু’দলই। বার্সার বিপক্ষে ইনজুরির কারণে স্তেফান সাভিচ, হোসে হিমেনেজ, সিমে ভ্রাসালকোদের কাউকেই পাচ্ছে না অ্যাটলেটিকো। থাকছেন না স্ট্রাইকার ডিয়েগো কস্তাও। ইনজুরির কারণে নেলসন সেমেদো, জর্দি আলবা, ডেম্বেলেকে পাচ্ছেন না ভালভার্দে। লিগে পাঁচ ম্যাচে হলুদ কার্ড দেখায় অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে সার্জিও বুস্কেটসকেও পাচ্ছে না বার্সা। 

     

    সম্ভাব্য মূল একাদশ

    অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ (৪-৪-২): ওবলাক; ট্রিপিয়ের, হারমোসো, ফেলিপে, লোদি; কোরেয়া, সল, থমাস, কোকে; ফেলিক্স, মোরাতা

    বার্সেলোনা (৪-৩-৩): টের স্টেগান; রবার্তো, পিকে, উমতিতি, ফিরপো; আর্থার, ডি ইয়ং, ভিদাল; মেসি, সুয়ারেজ, গ্রিযমান

     

    সংখ্যায় সংখ্যায়

    • লিগে ২০১০-এর পর বার্সেলোনাকে হারাতে পারেনি অ্যাটলেটিকো
    • ২০১৭-এর পর অ্যাটলেটিকোর মাঠে জিততে পারেনি বার্সেলোনা
    • এই মৌসুমে লিগে সবচেয়ে কম ম্যাচ হেরেছে অ্যাটলেটিকো (১)