• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    সিটিকে আরও দূরে সরিয়ে দিল লিভারপুল

    ফুলটাইম
    লিভারপুল ২-১ ব্রাইটন


    ব্রাইটনের বিপক্ষে অ্যানফিল্ডে লিভারপুলের জয় নিয়ে সংশয় ছিল না। সংশয় তৈরি হওয়ার মতো একটি মুহুর্তই তৈরি হয়েছি ম্যাচে। সেটাও অ্যালিসনের ভুলে। বক্সের বাইরে থেকে বল হাত দিয়ে ধরে ৭৬ মিনিটে মাঠ ছেড়েছিলেন অ্যালিসন। লিভারপুল তখনও ২-০ তে এগিয়ে ছিল। ওই ফ্রি-কিক থেকে গোল খেয়ে হুট করেই ম্যাচটা কঠিন হয়ে যায় লিভারপুলের জন্য। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ১০ জনের দল নিয়ে লিভারপুল জিতেছে। ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে তাই পার্থক্য আরও বাড়িয়ে নিয়েছে ইউর্গেন ক্লপের দল।

    দিনের প্রথম ম্যাচে নিউক্যাসেলের সঙ্গে ড্র করে সিটির পয়েন্ট ১৪ ম্যাচ শেষে ২৯। আর লিভারপুলের ৪০। শীর্ষ স্থানে এখন ১১ পয়েন্টের লিড লিভারপুলের। লিগের অর্ধেকেরও বেশি বাকি এখনও। কিন্তু শিরোপা পাওয়া না পাওয়া এখন লিভারপুলের ওপরই নির্ভর করছে পুরোটা।  

    অ্যানফিল্ডে ১৮ আর ২৪ মিনিটে ভার্জিল ভ্যান ডাইক জোড়া গোল করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ লিভারপুলকে এনে দিয়েছেন শুরুতেই। দুইবারই তিনি হেডে গোল করেছেন ট্রেন্ট অ্যালেক্সান্ডার আর্নল্ডের সেটপিস থেকে- একবার ফ্রি-কিক পরেরবার কর্নার থেকে।

    প্রথমার্ধে লিভারপুল গোল ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে পারত আরও। সাদিও মানে, রবার্তো ফিরমিনোরা একাধিক সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য কিছুটা গুছিয়ে খেলা শুরু করে ব্রাইটন। যদিও লিভারপুলের দুই গোলের লিড তখন ব্রাইটনের জন্য মনে হচ্ছিল পাহাড়সমান। 

    কিন্তু ৭৬ মিনিটে সেই কাজটাই হুট করে কঠিন হয়ে যায়। লিয়ান্দ্রো টোসার্ডকে আটকাতে বক্স ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন অ্যালিসন। এর পর বল ধরেছেন হাত দিয়ে। লিভারপুলের তখনও একটি বদলি বাকি ছিল। গোলরক্ষক আদ্রিয়ান নামেন ম্যাচে দারুণ খেলতে থাকা অ্যালেক্স অক্সলেড চেম্বারলিনের জায়গায়। 

    আদ্রিয়ান মাঠে নেমেই দলের মানব দেয়াল ঠিক করতে করতেই ফ্রি-কিক থেকে গোল করে বসেন লুইস ডাঙ্ক। প্রথমার্ধে দারুণ একটি সুযোগ হাতছাড়া করেছিলেন তিনি। ডাঙ্কের বুদ্ধি তখন ম্যাচে ফেরায় ব্রাইটনকে। বাকিটা সময় লিভারপুলের রক্ষণকে এর পর ভালোই পরীক্ষায় ফেলেছিল ব্রাইটন। আদ্রিয়ান দারুণ একটি সেভ করে আটকে দিয়েছিলেন অ্যারন মুইকে। অবশ্য এর পরই তার ভুলে গোল খেয়ে বসতে গিয়েছিল লিভারপুল। সহজ হেড লুফে নিতে গিয়ে বল হাত ফস্কে বেরিয়ে গিয়েছিলেন আদ্রিয়ানের। পরে নিজেই দ্বিতীয়  চেষ্টায় রক্ষা করেছেন। 

    শেষ পর্যন্ত আর তাই সবটুকু নিংড়ে দিয়েও সমতায় ফেরা হয়নি ব্রাইটনের। জয়ের পর ক্লপের দলের নতুন একটি রেকর্ড হয়ে গেছে। কেনি ডাল্গলিশের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছে তার লিভারপুল। লিগে এখন টানা ৩১ ম্যাচ অপরাজিত তারা। লিভারপুলের একটানা সবচেয়ে বেশি অপরাজিত থাকার রেকর্ড এটিই। ৩১ ম্যাচের ২৬ টিই জিতেছে লিভারপুল।