• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    আরও এক রেকর্ডে ইউনাইটেডকে হারিয়ে শিরোপার আরও কাছে লিভারপুল

    ফুল-টাইম

    লিভারপুল ২-০ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড


    ওল্ড ট্রাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে লিভারপুলের হয়ে ছিলেন না মোহামেদ সালাহ। প্রিমিয়ার লিগে এবার একমাত্র ইউনাইটেডই পয়েন্ট কেড়ে নিতে পেরেছিল ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের থেকে। অ্যানফিল্ডে ফিরতি ম্যাচের দিন তিনেক আগে ‘রেড ডেভিল’দের বিপক্ষে কেন জিততে পারেনি লিভারপুল, এমন প্রশ্নে সালাহ মজা করে বলেছিলেন, ‘আমি ছিলাম না তাই’। মজা করে বললেও অ্যানফিল্ডে কথাটি সত্য প্রমাণ করলেন সালাহ। দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত সময়ে ইউনাইটেডের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দিয়েছেন তিনি, লিগে হোমে টানা ১৯ ম্যাচ জিতল লিভারপুল। ২২ ম্যাচ পর ইউরোপের শীর্ষ ৫ লিগে সর্বোচ্চ পয়েন্টের রেকর্ড এখন ক্লপের দলের।

    অ্যানফিল্ডে স্কোরলাইন সহজ জয়ের ইঙ্গিত দিলেও ব্যবধানটা আর বড় হতে পারত ক্লপের দলের। দুই অর্ধেই গোলের একাধিক সুযোগ হাতছাড়া করেছে লিভারপুল। অবশ্য প্রথমার্ধের শুরুতে গোলের প্রথম সুযোগটাই কাজে লাগিয়েছিল ক্লপের দল। ১৪ মিনিটে রাইটব্যাক ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ডের কর্নারে হেডে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন লিভারপুল ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডাইক। নিজেদের ইতিহাসে এবারই প্রথম লিগে টানা ২২ ম্যাচে গোল করল লিভারপুল। মিনিট দশেক পর ব্যবধান দ্বিগুণও করেছিল ‘অল রেড’রা।

     

     

    রবার্তো ফিরমিনোর দুর্দান্ত বাঁকানো শটে আবারও উল্লাসে মাতে ক্লপের দল। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায়, গোলের বিল্ড-আপে ইউনাইটেড গোলরক্ষক ডেভিড ডি গেয়াকে ফাউল করেছিলেন ভ্যান ডাইক। ‘ভিএআর’-এ বাতিল হয় গোলটি। প্রথমার্ধের শুরু যতটা দুর্দান্ত হয়েছিল, শেষটা ছিল ততটাই ম্যাড়ম্যাড়ে। শেষ ২০ মিনিটে গোলের তেমন সুযোগ তৈরি করতে পারেনি কোনো দলই। বল পজেশন, গোলের সুযোগ তৈরিতে এগিয়ে থাকলেও লিড মাত্র এক গোলের হওয়ায় হয়তো হাফটাইমে অসন্তুষ্ট ছিলেন ক্লপ। দ্বিতীয়ার্ধে আরও অগ্নিশর্মা রূপ ধারণ করে লিভারপুল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারতেন সালাহ। অ্যান্ড্রু রবার্টসনের ক্রস ইউনাইটেড ডিফেন্ডার লুক শ’ মিস করলে গোলের একেবারে সামনে থেকেও বল বাইরে মেরেছেন তিনি।

    তবে থেমে যায়নি লিভারপুল। ৪৮ মিনিটে ডি গেয়ার অবিশ্বাস্য সেভের জন্য এবার খালি হাতে ফিরতে হয় লিভারপুলকে। জর্ডান হেন্ডারসনের আগুনে শট ডি গেয়ার হাতে লেগে প্রতিহত হয় বারপোস্টে। দ্বিতীয়ার্ধের অবশ্য আরেকটু হলেই ব্যবধান দ্বিগুণ করতে না পারার চড়া মাশুল দিতে হত লিভারপুলকে। আন্দ্রেয়াস পেরেইরার সাথে দুর্দান্ত এক ‘ওয়ান টু’-এর পর লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারকে একা পেয়ে যান অ্যান্থনি মার্শিয়াল। কিন্তু শট বাইরে মেরেছেন তিনি।

    আক্রমণে মার্কাস রাশফোর্ডের অভাবটা বেশ ভুগিয়েছে তাদের। এই সুযোগের পর আক্রমণে আরও উজ্জ্বল হয়ে ওঠে ইউনাইটেড, কিন্তু অ্যালিসনকে আর পরাস্ত করা হয়নি। শেষদিকে গোলের আশায় হুয়ান মাতা, মেসন গ্রিনউডকেও নামিয়ে দিয়েছিলেন সোলশার, কিন্তু কাজের কাজটা আর হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে ইউনাইটেডের কর্নার নিয়ন্ত্রণে এনে লম্বা গোলকিকে সালাহকে পাস বাড়ান অ্যালিসন।

    এবার আর ভুল করেননি সালাহ, গোলের উদযাপনে ছুটে আসেন অ্যালিসন সহ সবাই। এই মৌসুমে লিগের ২২ ম্যাচের প্রতিটিতেই গোল করেছে লিভারপুল। সিটির চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ১৬ পয়েন্টে এগিয়ে আছে তারা, ২২ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৬৪ পয়েন্ট।