• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    চেলসিতে ল্যাম্পার্ডের প্রথম বড় সাইনিং হাকিম জিয়েখ

    গত কয়েকদিনে ইউরোপের প্রচারমাধ্যমে খবর চাউর হয়েছিল, চেলসিতে আসছেন ডাচ ক্লাব আয়াক্সের মরোক্কান মিডফিল্ডার হাকিম জিয়েখ। সেটি বৃহস্পতিবার বিকেলেই আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করল আয়াক্স। এই মৌসুমের বাকি অংশটা আয়াক্সে কাটিয়ে আগামী মৌসুমে চেলসিতে যোগ দিচ্ছেন জিয়েখ। চেলসি কোচ ফ্রাংক ল্যাম্পার্ডের প্রথম বড় সাইনিং হতে যাচ্ছেন ২৬ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার।

    জানুয়ারির দলবদলের সময়েই জিয়েখকে দলে ভেড়াতে চাচ্ছিল পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি, কিন্তু আয়াক্স মৌসুম শেষের আগে জিয়েখকে ছাড়তে চাইছিল না। চেলসি শেষ পর্যন্ত আয়াক্সের কথা মেনে নিয়েই জিয়েখকে দলভুক্ত করল।

    মরোক্কান বংশোদ্ভূত জিয়েখ নেদারল্যান্ডসের দ্রন্তেনে জন্ম নিয়েছেন। দেশটির হয়ে বয়সভিত্তিক দলগুলোতেও খেলেছেন তিনি। তবে ২০১৫ সালে সিদ্ধান্ত নেন নেদারল্যান্ডসের হয়ে আর নয়, বরং মরক্কোর হয়েই আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলবেন। মূলত ২০১৬-১৭ মৌসুমে এফসি টোয়েন্টে থেকে আয়াক্সে আসার পর ক্যারিয়ারের মোড় পাল্টে যায় এই মিডফিল্ডারের। ২০১৭-১৮ মৌসুম থেকে আয়াক্সের হয়ে এখন পর্যন্ত ডাচ লিগ এরেডিভিসি এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ৯৮ ম্যাচ খেলে ৩৬টি গোল করেছেন তিনি, আর গোল বানিয়ে দিয়েছেন ৪৭টি।

    গত চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ইউরোপের সব সব বাঘা বাঘা দলকে টপকে সেমিতে পা রেখেছিল আয়াক্স। শেষ ষোলোয় বার্নাব্যুতে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়েছিল ৪-১ গোলে । জিয়েখের গোল দিয়েই সেদিন রিয়ালের শেষের শুরু হয়েছিল। আসরজুড়ে দুর্দান্ত খেলে তখনই ইউরোপের বড় ক্লাবগুলোর নজরে এসেছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তার ঠিকানা হলো স্টামফোর্ড ব্রিজ।

    জিয়েখের খেলার ধরনের সঙ্গে অনেকেই চেলসির উইলিয়ানের সামঞ্জস্য খুঁজে পান। বাঁ পায়ে ড্রিবলিং, পাসিং, শুটিং; সবমিলিয়ে জিয়েখের মাধ্যমেই হ্যাজার্ড পরবর্তী যুগে চেলসিতে প্লেমেকারের প্রয়োজন মিটবে বলে মনে করেন ফুটবল বিশ্লেষকরা। আয়াক্সে বর্তমানে রাইট উইংয়ে খেলেন , তবে দলের প্রয়োজনে নাম্বার টেন হিসেবেও স্বচ্ছন্দ এই মরোক্কান।