• ভারতের নিউজিল্যান্ড সফর
  • " />

     

    ভারত ফেরার আগে ধবলধোলাই দুঃস্বপ্ন আর অনেক প্রশ্ন কোহলিদের সামনে

    ভারত ২৪২ ও ১২৪

    নিউজিল্যান্ড ২৩৫ ও ১৩২/৩

    ফলঃ নিউজিল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী

    ম্যাচসেরাঃ কাইল জেমিসন

    সিরিজসেরাঃ টিম সাউদি


    দেশের বিমানে চড়ার পর এবারের ভ্রমণটা বিরাট কোহলির কাছে অনেক লম্বা মনে হবে। সময়পাবেন অনেক প্রশ্নের উত্তর খোঁজারও। নিউজিল্যান্ডে এসে রান করতে ভুলে গেছেন, নিজের ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তা তো আছেই। তবে দল ভালো করলে সেটা ভুলে থাকা যেত। কিন্তু হয়নি সেটাও। ধবলধোলাইয়ের দুঃস্বপ্ন নিয়ে দেশে ফিরতে হচ্ছে কোহলিদের, আজ ভারত ৭ উইকেটে হেরে গেছে দ্বিতীয় টেস্টেও। ৮ বছর পর কোনো টেস্ট সিরিজে ধবলধোলাই হলো ভারত, আর অধিনায়ক হিসেবে সেই বিস্বাদ কোহলি পেলেন প্রথমবারের মতো।

    নিউজিল্যান্ডের জন্য অবশ্য এই সিরিজ জয়টা আর দশটা সিরিজ জয়ের চেয়ে বেশি কিছু। এই ভারতের কাছেই টি-টোয়েন্টিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ধবলধোলাই হয়েছিল, এরপর ওয়ানডে সিরিজে ফিরে এসেছিল প্রবল প্রতাপে। তবে দেশের বাইরেও কোহলিদের যে পারফরম্যান্স, তাতে একটা জমজমাট টেস্ট সিরিজের আশা ছিল। কিন্তু টেকনিক্যাল ও ট্যাকটিক্যালি দুর্দান্ত কিউইরা এখানে ভারতের চেয়ে অনেক এগিয়ে। সিরিজ জয় তো হয়েছেই, সেই সঙ্গে টেস্ট র‍্যাংকিংয়েও দুই নম্বরে উঠে এসেছেন উইলিয়ামসনরা। অন্যদিকে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অস্ট্রেলিয়ার সাথে ব্যবধানটা বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ হারিয়েছে ভারত।

    এই গোটা সিরিজের যেটা বিজ্ঞাপন, সেটাই আজ দেখা গেছে শেষ দিনেও। ভারতস্র সর্বনাশ অবশ্য দ্বিতীয় দিনেই যা হওয়ার হয়ে গিয়েছিল, প্রথম ইনিংসে ৭ রানের লিড নিয়েও দ্বিতীয় দিন শেষে ৯০ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে বসেছিল তারা। মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘার মতো আজ আবার পিছু নিয়েছে চোট দুর্ভাগ্য। হনুমা বিহারি আর র্শভ পান্ট মিলে শুরু করেছিলেন আজ। কিন্তু সাউদির বলে লেগ সাইডে খোঁচা দিয়ে বিহারি ফিরে যান ৯ রান করেই।  পরের ওভারেই আঘাত হানেন বোল্ট, এবার উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেছেন পান্টকে। ৯৭ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে ভারতের আশা প্রায় ওখানেই শেষ।

    জাদেজা অবশ্য একটু চেষ্টা করেছিলেন, দারুণ একটি ছয়ও মেরেছিলেন। কিন্তু ভারতের আসল ক্ষতিটা হয়েছে আউট না হ্যেই। বোল্টের বাউন্সার ডিফেন্ড করতে গিয়ে কাঁধে চোট পেয়েছেন শামি, শেষ পর্যন্ত আউট হয়েছেন সাউদির বলে। আর জাদেজার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে বুমরার রান আউটে ভারত অল আউট হয়েছে ১২৪ রান করেই।

    নিউজিল্যান্ড অবশ্য আজ ইনিংস ব্রেকের পর হেভি রোলার চালিয়েছে পিচে। তাতে মিনিট বিশেক ব্যাট করা সহজ ছিল। সেই ফায়দা নিয়েছেন দুই ওপেনার টম ল্যাথাম আর টম ব্লান্ডেল। সেই সঙ্গে আবার শুরু থেকে ছিলেন না শামি, চোটের জন্য নতুন বল হাতে নিতে পারেননি। তবে ল্যাথাম আর ব্লান্ডেল এর মধ্যেই জয় নিশ্চিত করে ফেলেছেন। একটা সময় মনে হচ্ছিল, ১০ উইকেটের জয় পেয়ে যাবে নিউজিল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত ল্যাথামকে ফিরিয়ে প্রথম উইকেট পেয়েছেন উমেশ। এরপর ব্লান্ডেলকে ৫৫ রানে ফিরিয়েছেন বুমরা, আউট করেছেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকেও। কিন্তু সেসব পরাজয়ের ব্যবধানই শুধু কমিয়েছে। ভারতকে দেশে ফিরতে হয়েছে খালি হাতেই।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন