• ইংল্যান্ডের শ্রীলঙ্কা সফর ২০২০
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    জুলাইতে 'দর্শকবিহীন' মাঠে হবে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ?

    করোনাভাইরাসে আর সব খেলার মতো অনিশ্চিত ক্রিকেটের ভবিষ্যতও। একটু একটু করে আবার খেলা কীভাবে ফেরানো যায়, তা নিয়ে কথা চলছে। এবার ইংল্যান্ড অধিনায়ক অইন মরগান আগামী জুলাইতে অস্ট্রেলিয়ার ইংল্যান্ড সফর ‘ফাঁকা মাঠে’ আয়োজন করা যায় কিনা, সেটি ভেবে দেখতে বলছেন সংশ্লিষ্টদের।

     করোনার কারণে বেশ কিছু সিরিজের সূচিতে পরিবর্তন এসেছে এরই মধ্যে। তাই জুলাইতে অনেকটা একই সময়ে ইংল্যান্ডের পাকিস্তান বা ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে টেস্ট সিরিজ খেলতে হতে পারে, অন্য দিকে অজিদের বিপক্ষে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের খেলাও রয়েছে। তাই একই সাথে দুই জায়গায় দুটি ইংল্যান্ড দল খেলানোর পরামর্শও দিয়েছেন ইংল্যান্ডের ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মরগান।

    কিন্তু দর্শক মাঠে না থাকলে সেটা কি আদৌ ক্রিকেট হবে? এটিকে খুব বড় বিষয় হিসেবে দেখেছেন না মরগান, “আমি দীর্ঘদিন কাউন্টি ক্রিকেট খেলেছি, দুবাই-আবুধাবিতে টেস্টও খেলেছি। সুতরাং এতে খুব এবশি অসুবিধা হওয়ার কথা না। যদি মেডিক্যাল স্টাফরা আমাদের খেলার জন্য সবুজ সংকেত দেন এবং ম্যাচগুলো যদি টিভিতে প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়, তাহলে আমি মনে করি খেলা পুনরায় শুরু করার ক্ষেত্রে এটা অনেক বড় একটি পদক্ষেপ হবেগ

    “আমার কাছে মনে হয় এখন আমাদের প্রতিটি বিকল্প নিয়েই ভাবা উচিৎ। কারণ বর্তমান সময়ের মতো অবস্থা আমি আমার জীবনে কখনও দেখিনি এবং অন্যরাও দেখেছে বলে মনে হয় না। ক্রিকেটেও এমন অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ কখনও আসেনি।”

    ক্রিকেট দ্রুত মাঠে গড়াক, এটাই মরগানের চাওয়া, “একজন খেলোয়াড়ের দৃষ্টিকোণ থেকে বলতে চাই, সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চালু রাখতে আমাদের যা যা করা দরকার, তার সবই আমরা করব। যখনই খেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, সব খেলোয়াড়রা তাতে সায় দেবেন বলেই আমার মত। অন্তত আমি তো নিশ্চিতভাবেই খেলছি।”

    “তবে অবস্থা এখনও অনেকটাই অনিশ্চিত, বাস্তবতা বিচার করলে এখনও খেলা নিয়ে ভাবার মতো অবস্থায় নেই আমরা।” ইংল্যান্ডে আগামী ২৮ মে পর্যন্ত সবধরনের ক্রিকেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডও (ইসিবি) এ বছরের বাকি সব হোম সিরিজ ‘দর্শকবিহীন’ মাঠে আয়োজনের বিষয়টি বর্তমানে ভেবে দেখছে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন