• ক্রিকেটারদের আলাপ
  • " />

     

    "টানা দুদিন ডাক করবে?", তামিমকে বলেছিলেন ওয়াগনার

    শেষ অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও ৬ ইনিংসের মাঝে ৪ বার বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথকে আউট করেছেন নিল ওয়াগনার, ৪ বারই স্মিথ কাবু হয়েছিলেন শর্ট বলে। শর্ট বলে ওয়াগনার যেন এখন অন্যরকমের এক ত্রাসের নাম, ক্রমাগত এই লেংথে বোলিং করে ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তুলে দেন তিনি। গত বছর নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে তার সামনে পড়েছিলেন তামিম ইকবালও। হ্যামিল্টনে তামিম ডাক করছিলেন ওয়াগনারের শর্ট বল। নিউজিল্যান্ড পেসার এসে তামিমকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, “আগামী দুই দিন ধরে ডাক করে যাবে তুমি? হ্যামস্ট্রিংয়ে এত শক্তি আছে?” 

    হ্যামিল্টনের প্রথম ইনিংসে তামিম অবশ্য করেছিলেন সেঞ্চুরি। তবে ওয়াগনার ঠিকই নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। নিজের লাইভ শো-তে তামিম ওয়াগনারের ব্যাপারে জানতে চেয়েছিলেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের কাছে। তামিমের মতে, ওয়াগনার যা করেন, সেটি অনন্য, “আমি নিশ্চিত, তুমি আমার কাছ থেকেই প্রথমবার শুনছো না যে তার মুখোমুখি হওয়াটা মোটেই সুখকর কিছু নয়। আমার মনে পড়ে, হ্যামিল্টন টেস্টে আমি তাকে ডাক করছিলাম। সে এসে আমাকে বললো, “আগামী দুই দিন তুমি ডাক করে যাবে? তোমার হ্যামস্ট্রিং এতো শক্তিশালী?”

    “তার আসলে এই পরিকল্পনার পেছনে কী ছিল? কারণ এটি খুবই অনন্য একটা ব্যাপার। এবং দারুণভাবে কাজে দেয় এটি। তোমার কী মনে আছে, কীসে শুরু করেছিল?”
     


    উইলিয়ামসন অবশ্য ঠিক নিশ্চিত না, কবে ওয়াগনার এটি শুরু করেছিলেন, “আমি আসলে নিশ্চিত না। সে তো খুব লম্বাও না, কিন্তু এটা দারুণভাবে কার্যকরী। হতে পারে ট্র্যাজেকটরি… কিন্তু নিশ্চিতভাবেই তার স্ট্যামিনা, তার এনার্জি।

    “কারণ তোমাকে যেটা বলেছে, সে দুদিন টানা এটা করতে প্রস্তুত। এবং আসলেই সে ঠিক এমন ভেবেই বলেছে (যে দুদিন টানা করে যেতে পারবে)। সে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ। সে এমনিতে দারুণ একজন মানুষ। কিন্তু উইকেটে গেলে অন্যরকম। নিজের সবটা উজাড় করে দেয়। এটা অনন্য একটা ব্যাপার আসলেই, তুমি যেমন বললে। বোলার হিসেবে এটা করাটা খুবই কঠিন। তবে সে দারুণ টিমম্যান। সে অন্যদিক দিয়েও দলের জন্য অনেক কিছু করে।”

    একবার বল হাতে পেলে তাকে বোলিং থেকে সরানো মুশকিল বলেও জানিয়েছেন উইলিয়ামসন, “অবশ্যই নতুন বলে আমাদের (টিম) সাউদি এবং (ট্রেন্ট) বোল্ট আছে, ফলে সে খুব বেশি সুযোগ পায় না। তবে একবার পেলে তার কাছ থেকে বল নিয়ে নেওয়া কঠিন। সে দীর্ঘ স্পেলে বোলিং করতে চায়। তুমি জানো, অধিনায়ক হিসেবে এমন কাউকে পাওয়াটা আশির্বাদ- যে টানা বোলিং করতে চায়।” 

    নিউজিল্যান্ডের হয়ে এখন পর্যন্ত ৪৮ টেস্ট খেলেছেন ওয়াগনার, নিয়েছেন ২০৬টি উইকেট।