• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    নেইমারের বর্ণবাদী অভিযোগ অস্বীকার মার্শেই ডিফেন্ডারের

    মার্শেইয়ের বিপক্ষে ম্যাচে পিএসজির তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছেড়ে যাওয়ার সময় সাইডলাইনে থাকা চতুর্থ রেফারি এবং ক্যামেরাের দিকে লক্ষ্য করে নেইমারকে কয়েকবার ‘বর্ণবাদ, না’ শব্দযুগল উচ্চারণ করতে দেখা গেছে। ম্যাচের পর টুইটারে তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার, মার্শেইয়ের আলভারো গঞ্জালেজের বিরুদ্ধে বর্ণবাদী মন্তব্যের অভিযোগ করেছেন তিনি।

    ম্যাচে তখন ৯০ মিনিট পেরিয়ে গেছে। মার্শেইয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ১-০ গোলে হারের মুখ দেখছিল পিএসজি, আর লিগে টানা দ্বিতীয় হার। তখনই মাঝ মাঠে একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে বেধে যায় দুই দলের মধ্যে। দ্রুতই উত্তাপ বাড়তে থাকে, দুই দলের কয়েকজন ধাক্কাধাক্কিতে মাটিতে পড়ে যান। নেইমারের সাথে তখন গঞ্জালেজের কিছু একটা নিয়ে জোর তর্কাতর্কি। ম্যাচের পর নেইমার জানালেন, সে সময় তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা ছাড়াও তার উদ্দেশ্য বর্ণবাদী মন্তব্য করেন গঞ্জালেজ। এরপর ভিএআরে দেখা যায় গঞ্জালেজের মাথায় আঘাত করেছেন নেইমার , আর সেজন্যই পরে লাল কার্ড দেখান রেফারি।


    ম্যাচের পর সেই ঘটনা নিয়ে করা টুইটে নেইমার লিখেছেন, “ভিএআর দিয়ে আমার হিংস্রতা দেখানো সহজ। এখন আমি চাই যে বর্ণবাদী আমাকে মাঠে ‘বানর মা***দ’ বলে গালি দিল তার ছবিটাও সামনে আসুক। এরপর? আমি রেইনবো ফ্লিক করলে আমাকে শাস্তি দেওয়া হয়। আমি চড় দিলে মাঠ থেকে বের কর দেওয়া হয়। ওদের কী হবে? এখন ওদের কী হবে?”

     

    তবে নেইমারের অভিযোগের তীর যার দিকে, সেই গঞ্জালেজ বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করলেন, “বর্ণবাদের কোনো জায়গা নেই। আমার ক্যারিয়ার স্বচ্ছ। সবসময়ই সতীর্থ এবং বন্ধুদের সাথে নিয়ে চলি। কীভাবে সম্মানের সঙ্গে হারতে হয়ে সেটাও জানা উচিৎ এবং মাঠেই ফল মেনে নেওয়া উচিৎ। আজ দারুণ ৩ পয়েন্ট পেয়েছি।”

     

    ম্যাচের পর অপর এক টুইটে নেইমার লিখেছেন, “সেই অপদার্থের মুখে চড় দিতে না পারায় আফসোস হচ্ছে।”

    লিগ আঁ কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে কিনা সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন