• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ নেইমার, বর্ণবাদের অভিযোগের ব্যাপারে তদন্ত শুরু

    দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন নেইমার। গত রবিবার পিএসজি-মার্শেই ম্যাচে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার আলভারো গঞ্জালেজের মাথায় চাপড় দেওয়ায় এই শাস্তি পেয়েছেন তিনি। আর ম্যাচের পর গঞ্জালেজের বিরুদ্ধে বর্ণবাদী আক্রমণের অভিযোগ এনেছিলেন নেইমার। সেই অভিযোগ আমলে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তদন্ত শুরু করেছে লিগ দে ফুটবল প্রফেশনেল (এলএফপি)।

    রবিবার পিএসজি-মার্শেই ম্যাচের অতিরিক্ত হঠাৎ করেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে দুই দলের খেলোয়াড়দের মাঝে বাক-বিতণ্ডা, ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। সেই ঘটনার পর রেফারি নেইমারসহ দুই দলের মোট পাঁচজন খেলোয়াড়কে লাল কার্ড দেখিয়েছিলেন। চারজনকে রেফারি নিজে লাল কার্ড দেখালেও নেইমারকে লাল কার্ড দেখানোর আগে ভিএআরের রিপ্লে দেখেন রেফারি। সেখানে দেখা যায়, গঞ্জালেজের মাথায় চাপড় দিচ্ছেন নেইমার। তারপর তাকেও লাল কার্ড প্রদর্শন করা হয়।


    এদিকে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়ার সময় চতুর্থ রেফারি এবং টিভি ক্যামেরার সামনে প্রথম গঞ্জালেজের বিরুদ্ধে বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ করেন। এরপর টুইটেও সেই অভিযোগ পুনর্ব্যক্ত করেন, “ভিএআর দিয়ে আমার সিংস্রতা বিচার করা সহজ। এখন আমি চাই যে বর্ণবাদী আমাকে মাঠে  "বানর মা**দ বলে গালি দিল তার ছবিটাও সামনে আসুক। এরপর? আমি রেইনবো ফ্লিক করলে, আমাকে শাস্তি দেওয়া হয়। আমি চড় দিলে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়। ওদের কী হবে? এখন ওদের কী হবে?”

    ম্যাচের টিভি ফুটেজ দেখে নেইমার এবং গঞ্জালেজের মাঝে কী হয়েছিল সেই ম্যাচে, সেটা বুঝার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছে এলএফপি। এছাড়া পিএসজির আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড আনহেল ডি মারিয়ার বিপক্ষে গঞ্জালেজের দিকে থুতু ছুড়ে মারার অভিযোগ করেছে মার্শেই। সেই বিষয়েও তদন্ত হবে, আর সেজন্য আগামী সপ্তাহে ডি মারিয়াকে ডেকেছে এলএফপি।

    আর সেই ম্যাচের ঘটনার জন্য পিএসজি এবং মার্শেইয়ের আরও বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়ের ওপর শাস্তির খড়গ নেমে এসেছে। মার্শেইয়ের জর্ডান আমাভিকে ‘লাথি ও ঘুষি’ মারার দায়ে ছয় ম্যাচের জন্য পিএসজির ডিফেন্ডার লেভিন কুরজাওয়াকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আর প্রতিক্রিয়া দেখানোয় আমাভিকে ৩ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আর যে দুই আর্জেন্টাইনের মধ্যে লড়াই থেকে ঘটনার সূত্রপাত, সেই লিয়ান্দ্রো পারেদেস এবং দারিও বেনেদেত্তোকেও যথাক্রমে দুই এবং এক ম্যাচ দর্শক হয়ে থাকতে হবে।

    শাস্তির বিরুদ্ধে পিএসজি এবং মার্শেই আপিল করবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন