• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    এমবাপে, ডি মারিয়ার গোলে নিসে ফিরল পুরনো পিএসজি


    ফুলটাইম
    নিস ০-৩ পিএসজি


    অবশেষে লিগ আঁ-তে দেখা মিলল পরিচিত পিএসজি। লিগের প্রতিটি প্রতিপক্ষের ওপর দিয়ে মৌসুমের পর মৌসুম ধরে স্টিমরোলার চালানো পিএসজি এই মৌসুম শুরু করেছিল অন্য মোড়কে। প্রথম দুই ম্যাচে হার, তৃতীয় ম্যাচ জয় এসেছে তাও ৯৩ মিনিটের গোলে। শেষ পর্যন্ত চতুর্থ ম্যাচে এসে চেনা ছন্দ ফিরে পেল ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নরা। নেইমার দলে ছিলেন না নিষেধাজ্ঞায়। তবে প্রথমার্ধেই  কিলিয়ান এমবাপে এবং আনহেল ডি মারিয়ার গোল করে তার অভাব বুঝতে দেননি। দ্বিতীয়ার্ধে মার্কুইনোস আরেক গোল করে ম্যাচ নিসের ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যান। চার ম্যাচে দুই জয় নিয়ে টেবিলের সাতে উঠেছে পিএসজি


    ম্যাচের শুরুর দিকে নিস পিএজসির বক্সের আশপাশে কিছুটা আতঙ্ক ছড়ালেও সময়ের সাথে সাথে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বুঝে নেয় পিএসজি। দলে ফিরেই এমবাপে আলো ছড়িয়েছেন। ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণে নিসকে তটস্থ রাখেন তিনি। ২৫ মিনিটে প্রথম গোলের ভালো সুযোগ পেয়েছিলেন এমবাপে। ইকার্দির লে-অফ পেয়েছিলেন তিনি। সামনে ছিলেন শুধু নিস গোলরক্ষক ওয়াল্টার বেনিতেজ, তবে এমবাপে ওয়ান-টু-ওয়ান অবস্থা থেকে বল মারেন গোলপোস্টের ওপর দিয়ে।

    তবে ৩৮ মিনিটে এমবাপের সুবাদেই ম্যাচে এগিয়ে যায় পিএসজি। বক্সের ভেতর খেফরেন থুরাম তাকে ফাউল করে বসেন। এরপর স্পট কিক থেকে বল জালে পাঠাতে মোটেও বেগ পেতে হয়নি তার। পিএসজির দ্বিতীয় গোলটিও এমবাপেরই তৈরি করে দেওয়া। মাঝমাঠ থেকে দৌড়ে গিয়ে নিস ডিফেন্ডারডের তুচ্ছ করে বক্সের ভেতর থেকে জোরালো শট নিয়েছিলেন তিনি, তবে তার শট ঠেকিয়ে দেন বেনিতেজ, তবে সেটি ঠেকিয়েও ঠিকঠাক ক্লিয়ার করতে পারেননি তিনি। বেনিতেজের স্বদেশী ডি মারিয়া ফিরতি প্রচেষ্টায় বল জালে জড়ান।

    দ্বিতীয়ার্ধের ৬৬ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে ডি মারিয়ার ফ্রি-কিক খুঁজে পায় মার্কুইনোসকে। পায়ের হালকা ছোঁয়ায় বেনিতেজকে পরাস্ত করে দলের জয় নিশ্চিত করেন পিএসজির নতুন অধিনায়ক। নিস অনেক চেষ্টা করেও এই ম্যাচ থেকে কিছুই বের করতে পারেনি। এই মৌসুমে প্রথম স্বচ্ছন্দ জয়ে নিশ্চয়ই স্বস্তি পাবেন পিএসজি কোচ থমাস তুখল।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন