• সিরি আ
  • " />

     

    ইব্রার জোড়া গোলে মিলানের জয়

    নতুন মৌসুম শুরু হয়েছে, তবে ইব্রাহিমোভিচ তার পুরনো জাদুতেই এখনো সবাইকে চমকে দিচ্ছেন। গত মৌসুমের ফর্ম নতুন মৌসুমেও অব্যাহত রাখলেন তিনি। সিরি আ-য় বোলোনিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করে এসি মিলানকে জয় এনে দিয়েছেন বর্ষীয়ান এই ফরোয়ার্ড। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে হ্যাটট্রিকও পেয়ে যেতে পারতেন তিনি।

    ম্যাচের ৩৫ মিনিটে দুর্দান্ত হেডারে প্রথম দলকে এগিয়ে দেন ইব্রাহিমোভিচ। আর দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি থেকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন এই সুইডিশ স্ট্রাইকার। আর এই জয়ের সুবাদে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে অপরাজিত থাকার রেকর্ড দীর্ঘ করল মিলান, সব মিলিয়ে এখন ১৫ ম্যাচে অপরাজিত দলটি।


    ম্যাচের পর ইব্রাহিমোভিচ বললেন বয়স কিছুটা কম হলে গোলের বন্যা বইয়ে দিতেন, “আমার বয়স যদি ২০ হত, আরও দুটি গোল করতাম। তবে আম চাই না লোকে আমার বয়স নিয়ে কথা বলুক, আমাকেও অন্য সবার মতোই দেখা হোক। আমার বয়স ৩৮ এটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, আমি ২০ বছর বয়সীর মতোই কাজ করতে চাই।”

    বোলোনিয়ার কোচ সিনিসা মিহায়লোভিচও একবাক্যে স্বীকার করলেন, ম্যাচে ইব্রাহিমোভিচ একাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন, “তাদের কাছে ইব্রাহিমোভিচ আছে, আমাদের সেটা নেই। ম্যাচে তারা যা কিছু করার চেষ্টা করেছে তার মূলে ছিল ইব্রাহিমোভিচ।”

    উলভসকে হারিয়ে জয়ে শুরু করেছে ম্যানচেস্টার সিটি

    করোনার কারণে প্রিমিয়ার লিগের দলগুলোর মাঝে বেশি বিপদে আছে ম্যানচেস্টার সিটি। আইমেরিক লাপোর্তে এবং রিয়াদ মাহরেজ আগেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এবার নতুন করে দলটির জার্মান মিডফিল্ডার ইলকে গুন্দোয়ানও করোনায় আক্রান্ত হয়ে সেলফ-আইসোলেশনে রয়েছেন। তবে এর ফলে খেলার মাঠে মোটেও প্রভাব পড়েনি ম্যানচেস্টার সিটি। কেভিন ডি ব্রুইন, ফিল ফোডেন এবং গ্যাব্রিয়েল হেসুসের গোলে মৌসুমের প্রথম ম্যাচটি সহজেই জিতে নিয়েছে সিটিজেনরা।

    উলভসের বিপক্ষে শুরু থেকেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে খেলতে থাকে ম্যান সিটি। ২০ মিনিটে পেনাল্টি আদায় করে দেন ডি ব্রুইন। গত মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের বর্ষসেরা খেলোয়াড় ডি ব্রুইন এরপর স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে দিতে কোনো ভুল করেননি।

    ৩২ মিনিটে রহিম স্টার্লিংয়ের কাটব্যাক থেকে নিখুঁত ফিনিশে ব্যবধান বাড়ান ২০ বছর বয়সী ফোডেন। ৭৮ মিনিটে উলভসের মেক্সিকান স্ট্রাইকার রাউল হিমেনেজ গোল করে ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করেন। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে হেসুসের গোলে জয় নিশ্চিত হয় ম্যান সিটির।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন