• চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    শাখতারের কাছে হেরে খাদের কিনারায় রিয়াল, নকআউটে ওঠার জন্য যা করতে হবে...

    শাখতারের কাছে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচেই পা কেটেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কাল তাদের হারালে শুধু প্রতিশোধ নয়, সুযোগ ছিল নকআউট নিশ্চিত হওয়ার। কিন্তু সেই শাখতারের কাছেই কাল আবার রিয়াল হেরে গেল ২-০ গোলে। জিনেদিন জিদানের দলকে এখন চোখ রাঙাচ্ছে প্রথমবারের মতো ইউরোপা লিগ খেলার হাতছানি।

    জিনেদিন জিদানের কপালের ভাজটা এখন বড়ই হয়ে উঠছে। চোটের জন্য কাল রামোসকে পাননি, কিন্তু গত মৌসুমে সিটির বিপক্ষের ম্যাচের মতো এবারও রাফায়েল ভারানের ভুলের মাশুল দিতে হয়েছে তার দলকে। তার আগে রিয়ালের শুরুটা দারুণ হতে পারত। ৫ মিনিটের ভেতরেই মার্কো আসেনসিওর শট ফিরে আসে পোস্টে লেগে। করিম বেনজেমা চোট কাটিয়ে ফিরেছিলেন, তার পাস থেকেই শট নিয়েছিলেন বেনজেমা। এর খানিক পর বেনজেমার শট সেভ করেন শাখতার গোলরক্ষক, ৩০ মিনিটের মধ্যে আসেনসিওর আরেকটি শট চলে যায় পোস্টের ওপর দিয়ে। প্রথমার্ধে কোনো গোল হয়নি শেষ পর্যন্ত।

    কিন্তু ছকটা বদলে যায় দ্বিতীয়ার্ধে এসে। জুনিয়র মোরায়েস চোট পেয়ে উঠে যান, তার জায়গায় বদলি হিসেবে নামেন ডেন্টিনহো। ৫৭ মিনিটে শাখতারের এই ফরোয়ার্ডই এগিয়ে দেন দলকে। এবার ভুলটা ভারানের, তার অমনযোগিতায় বল পেয়ে জালে জড়িয়ে দেন ডেন্টিনহো। রিয়াল এরপর গোল শোধ করার চেষ্টা করতে থাকে, কিন্তু ৮২ মিনিতে গ্রিক ফরোয়ার্ড ম্যানর সলোমনের দুর্দান্ত এক সলো গোলে উল্টো আরও পিছিয়ে পড়ে।

    এই হারের পর এই গ্রুপের অবস্থাটা দাঁড়িয়েছে বেশ জটিল। ইন্টার মিলান মনশেনগ্লাডবাখকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দেওয়ায় আরও জমজমাট হয়ে উঠেছে গ্রুপ। মনশেনগ্লাডবাখ এখনো ৮ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে। শাখতার ও রিয়াল দুই দলেরই পয়েন্ট ৭। আর ইন্টারের পয়েন্ট ৫। শেষ ম্যাচে রিয়ালের প্রতিপক্ষ মনশেনগ্লাডবাখ, দুই দলের মধ্যে তারা জিতবে তারা চলে যাবে নকআউটে। অন্য কোনো ফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না তাদের। আর রিয়াল যদি ড্র করে, তাহলে প্রার্থনা করতে হবে শাখতার যেন ইন্টারের সঙ্গে হেরে যায়। যদি শাখতার ও রিয়ালের পয়েন্ট সমানও হয়, তাহলে হেড টু হেডে এগিয়ে থাকার সুবাদে শাখতারই চলে যাবে নকআউট পর্বে। যেটা হলে ২৩ বছর চ্যাম্পিয়নস লিগে নকআউট খেলার রেকর্ড ভেঙে যাবে রিয়ালের, প্রথমবারের মতো খেলবে ইউরোপা লিগে।  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন