• রিও অলিম্পিক ২০১৬
  • " />

     

    পড়ে গিয়েও মো ফারাহর সোনা জয়!

    ১০ হাজার মিটার দৌড়ের প্রথমভাগে নিজের ট্রেইনিং পার্টনার গ্যালেন রাপের সাথে ধাক্কা খেয়ে পড়ে গেলেন মো ফারাহ। আশেপাশের সবাই এগিয়ে যাচ্ছে, দৌড়ের ২৪টি ল্যাপের তখনো বাকি ১৬টি। মনে হচ্ছিল এবার বোধয় সোনাটা অধরাই থেকে যাবে এই ইংরেজ অ্যাথলেটের। কিন্তু মো তো হার মানার পাত্র নন! ঠিকই উঠে দাঁড়িয়ে দৌড়াতে শুরু করলেন। শেষ ১০০ মিটারে গিয়ে তাঁর গতির কাছে হার মানলেন রূপা জেতা কেনিয়ার পল তানুইসহ বাকি প্রতিযোগীরা। ২৭ মিনিট ৫ সেকেন্ড সময় নিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো এই ইভেন্টে সোনা জিতলেন, রিও’র দর্শকরা দেখল সেই বিখ্যাত ‘মোবট’ উদযাপন।

     

     

    লন্ডন অলিম্পিকে একই ইভেন্টে সোনা জেতা এই অ্যাথলেট নিজেও একটু সন্দিহান ছিলেন জয়ের ব্যাপারে, “ আমি যদি ৫ ল্যাপ আগে পড়ে যেতাম তাহলে হয়তো আমার পক্ষে জেতা সম্ভব হতোনা। ভাগ্যিস অন্যরা আমার পড়ে যাওয়ার ব্যাপারটা খেয়াল করেনি সামনে থেকে, নাহলে তো সবাই গতি বাড়িয়ে আমাকে আরও পেছনে ফেলে দিত!”

     

    বরাবরের মতো এবারো স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিল ফারাহর পরিবার। জয়টা তাদেরকেই উৎসর্গ করেছেন, “ আমি হার মানতে চাইনি। তখন আমি নিজের পরিবারের কথা ভাবছিলাম, তাঁদের জন্য হলেও আমাকে জিততে হবে। নিজের উপর ভরসা রেখে এগোতে থাকলাম। এই জয় আমি আমার পরিবারকে উৎসর্গ করছি।সামনের ৫ হাজার মিটারের সোনা আমি আমার ছোট ছেলের জন্য জিততে চাই।”

    ডোপ পাপের কলঙ্ক থেকে এখন পর্যন্ত দূরে থাকতে পেরেছেন। সোমালিয়ান কোচ জামা অ্যাডেনের সাথে তাঁর সখ্যের ব্যাপারটা কারও অজানা নয়, ডোপিংয়ের দায়ে গত জুনে জামাকে স্প্যানিশ পুলিশ গ্রেফতার করেছে । যদিও এসবের সাথে তাঁর কোন সম্পর্ক নেই বলেই দাবি করেছেন ফারাহ, “ উনি আনঅফিশিয়াল সাহায্যকারী ছিলেন, শুধু টাইমিং দেখার জন্য ঘড়ি ধরে থাকতেন। কতজনের সাথেই তো আপনার ছবি থাকতে পারে, এর মানে এই না যে আপনি তাদের সাথে সরাসরি কাজ করেছেন।”

     

    সামনে ফারাহ’র জন্য রয়েছে আরেকটি রেকর্ডের হাতছানি। নিজের দ্বিতীয় ইভেন্টে আগামী বুধবার ৫ হাজার মিটারের স্বর্ণজয়ের জন্য ট্র্যাকে নামবেন ফারাহ। ১৯৭২ সালে ফিনল্যান্ডের লাসে ভিরেন পরপর দুই অলিম্পিকে করেছিলেন পাঁচ ও দশ হাজার মিটারের ডাবল। মজার ব্যাপার হচ্ছে ভিরেনও তাঁর দৌড়ের সময় মাঝপথে পড়ে গিয়েও সোনা জেতেন। ৪৪ বছর পর মো সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তিই ঘটালেন। এবার কি রেকর্ডটারও পুনরাবৃত্তি হবে?

     

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন