• ইংল্যান্ড-বাংলাদেশ সিরিজ
  • " />

     

    'বাংলাদেশের কাছে পরাজয় কোনোভাবেই মেনে নেয়ার মত নয়'

    ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের কাছে ১০৮ রানে পরাজয়ের পর সমালোচনায় সরব হয়েছে ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটাররা। সমালোচকদের মধ্যে সবচেয়ে সোচ্চার হিসেবে দেখা গেছে কিংবদন্তি পেসার বব উইলিসকে। যিনি কোনোভাবেই মানতে পারছেন না বাংলাদেশের কাছে পরাজয়।

    ইংল্যান্ডের পারফরম্যান্সকে ‘লজ্জাজনক’ ও ‘একেবারে অগ্রহণযোগ্য’ বলেছেন উইলিস। এরপরই একহাত নিয়েছেন ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে। বলেছেন এই ম্যাচের জন্য একটা ‘দুবলাপাতলা’ দলকে নির্বাচন করেছে বোর্ড। বিশেষ করে পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডকে দল থেকে বাদ দেয়ার কোন যৌক্তিকতাই খুঁজে পাননি তিনি।

    রোষের সঙ্গে সাবেক এই ফাস্ট বোলার স্কাই স্পোর্টসকে বলেছেন, “ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের বিপর্যয়ের কথা যদি বলা হয় তাহলে এটা শীর্ষেই থাকবে। লাখো মানুষের আশা-ভরসা যে ইংল্যান্ডের সঙ্গে জড়িত, তারা এই সিরিজে কেবল লজ্জাই দিয়েছে।”

    সাবেক এই গতি তারকা বলেছেন, “বাংলাদেশের কাছে পরাজয় কোনোভাবেই মেনে নেয়ার মত নয়।”

    স্পিনে দুর্বল ইংল্যান্ডের পরিণতি যে এমন কিছুই হতে পারে সেটা আঁচ করতে পেরেছিলেন সাবেক অধিনায়ক মাইক আথারটন। ধারাভাষ্যকার হিসেবে মাঠ থেকে খেলা দেখা আথারটন মনে করেন ইংল্যান্ড দলের পরাজয়ের পেছনে কারণ দুটি। প্রথমত, স্পিন বলে দুর্বলতা। দ্বিতীয়ত, ব্যাটিং লাইন আপের ছন্নছাড়া অবস্থা। এই দুই মিলেই হেরেছে ইংল্যান্ড। চট্টগ্রাম টেস্টের কথা তুলে তিনি বলেছেন, “বাংলাদেশে এই দুর্ঘটনাটি যেন ঘটার অপেক্ষাতেই ছিল।চট্টগ্রামে বেঁচে গেলেও এবারে শেষ রক্ষা হয়নি।”

    ঘরের মাঠে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল দেখছেন সাবেক এই ওপেনার, “এই কন্ডিশনে বাংলাদেশ সবাইকে চ্যালেঞ্জ করতে পারে।”

    আরেক সাবেক অধিনায়ক নাসের হুসাইন ইংল্যান্ডের সমালোচনা করতে বেছে নিয়েছেন ডেইলি মেইলে লেখা কলামকে। নাসেরের তোপের মুখে পড়েছেন স্পিনার মঈন আলী, গ্যারেথ ব্যাটি, আদিল রশিদ ও জাফর আনসারি। তাঁদের সাদামাটা বোলিংয়ে বিরক্ত সাবেক এই ব্যাটসম্যান। আসন্ন ভারত সফরে ভালো করার জন্য ভালো একজন স্পিনারের বিকল্প দেখছেন না নাসের।

    সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইংলিশ সমর্থকদের নিন্দা কুড়িয়েছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান গ্যারি ব্যালান্স। তাঁকে দলে রাখার কোনো যৌক্তিকতাই দেখেন না নাসের, “গত গ্রীষ্মে ব্যালন্সকে দলে নেয়ার পরপরই অনেক প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল এবং তারপর এমন কিছু ঘটেনি যে আমরা বলতে বাধ্য হবো,বাহ! দারুণ লোককে তো দলে নিয়েছেন নির্বাচকরা।”

    সাবেকদের মধ্যে ব্যতিক্রম ইয়ান বোথাম। বাংলাদেশের বিপক্ষে পরাজয়ের জন্য কৃতিত্বটা স্পিনবান্ধব পিচকে দিয়েছেন সাবেক এই অলরাউন্ডার। বলেছেন বিদেশের মাটিতেই আসল পরীক্ষা হবে বাংলাদেশের। তবে, ইংল্যান্ডের জন্য অগ্নিপরীক্ষা হিসেবে তিনি দেখছেন পাঁচ টেস্টের ভারত সফরকে।



     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন