• ইংল্যান্ড-বাংলাদেশ সিরিজ
  • " />

     

    "আমার পরিবারও সমালোচনার শিকার হয়েছিল!"

    গত জুলাইতে গুলশান হামলার পর অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশ সফর। শেষ পর্যন্ত সব ঝামেলা মিটিয়ে ইংল্যান্ড দল আসলেও দলের সাথে আসেননি ইংল্যান্ডের ওয়ানডে অধিনায়ক এউইন মরগান। নির্বিঘ্নেই শেষ হওয়া সেই সফরের আগে-পরে দারুণ সমালোচিত হয়েছিলেন। এতদিন পর সে ব্যাপারেই মুখ খুলেছেন তিনি।

    ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড দুদেশের হয়েই আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা মরগান জানিয়েছেন তাঁর পরিবারও বাদ পড়েনি সমালোচনা থেকে, “আমি চেয়েছিলাম ঝামেলামুক্ত থাকতে। সেই জন্যই নিজেকে সরিয়ে নেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কিন্তু আমার পরিবারকে অনেক কিছু সহ্য করতে হয়েছে। আমাকে করা সমালোচনা তাদের ওপর দিয়েও গেছে। অবশ্য এটাই স্বাভাবিক। লাইমলাইটে থাকার কারণেই এমনটা হয়েছে।”

    গুলশানের সন্ত্রাসী হামলার পর ওটাই ছিল প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক দলের বাংলাদেশ সফর। মিডলসেক্সের হয়ে কাউন্টি খেলা মর্গান আরও জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে তার কোনো অপরাধবোধ নেই, "সবদিক ভেবেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। তাই সফরে না যাওয়া নিয়ে কোনো ধরণের দ্বিধা ছিল না আমার মনে।" সেবার সফরে না আসার সিদ্ধান্ত ঘোষণার সময় বলেছিলেন, ভবিষ্যতেও প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত না হলে দেশের বাইরে খেলতে যাবেন না তিনি। কারণ তিনি চান না নিরাপত্তা ইস্যু তার খেলায় প্রভাব ফেলুক। তার অনুপস্থিতিতে জশ বাটলারের নেতৃত্বে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জেতে ইংল্যান্ড।

    নিরাপত্তা ইস্যুতে ৩০ বছর বয়সী অধিনায়কের সাথে অক্টোবরের বাংলাদেশ সফরে আসেননি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলিসও। তবে দুজনেই ফিরেছেন ভারতের সাথে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজের দলে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন