• আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ
  • " />

     

    ত্রিদেশীয় সিরিজ নিউজিল্যান্ডের


    সংক্ষিপ্ত স্কোর

    নিউজিল্যান্ড ৩৪৪/৬, ৫০ ওভার (ল্যাথাম ১০৪, টেইলর ৫৭, মানরো ৪৪, চেজ ২/৬৯)

    আয়ারল্যান্ড ১৫৪ অল-আউট, ৩৯.৩ ওভার (পোর্টারফিল্ড ৪৮, হেনরি ৩/৩৬)

    ফলঃ নিউজিল্যান্ড ১৯০ রানে জয়ী


    তিন ম্যাচে তিন জয়, বাংলাদেশের সঙ্গে শেষ ম্যাচটা বাকি রেখেই ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে একটু লড়াইয়ের আভাস দিলেও এবার কিউইদের কাছে পাত্তা পায়নি আইরিশরা। মালাহাইডে নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৯০ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরে ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকে প্রাপ্তির ভাঁড়ারটা প্রায় শূন্যই আইরিশদের। 

     

    টসে জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিলেন উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড। তবে সে সিদ্ধান্ত আর কাজে আসলো কই! ১১১ বলে ১০৪ রান, ৯ চার ও ৪ ছয়ে টম ল্যাথামের ইনিংসটাই মূলত ছিটকে দিয়েছিল আয়ারল্যান্ডকে। ল্যাথামের ইনিংসটা সেঞ্চুরির আগেই শেষ হতে পারতো, ৮৯ রানে ক্রেইগ ইয়ংয়ের নো বলে লং লেগে দিয়েছিলেন ক্যাচ। লুক রংকির সঙ্গে ভিত্তিটা এর আগেই গড়েছেন, ওপেনিং জুটিতে ৭০ রান করে। অধিনায়ককে রংকির পরও সঙ্গ দিয়ে গেছেন নিল ব্রুম(৩৮), রস টেইলররা। ল্যাথাম ডকরেলের বলে স্ট্যাম্পড হয়েছেন, এর আগেই তো হয়ে গেছে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ওয়ানডে সেঞ্চুরি। আর টেইলর পেয়েছেন সিরিজের তৃতীয় ফিফটি, ৬৪ বলে তিনি করেছেন ৫৭। মিচেল স্যান্টনার ও কলিন মানরোর ঝড়টা শুরু হয়েছে এরপর। স্যান্টনার ২ চার ও ১ ছয়ে ৯ বলে করেছেন ২০ রান। মানরো আরও বেশী ধ্বংসাত্মক, ১৫ বলে ৪৪ রান করেছেন ৩ চার ও ৪ ছয়ে। আগের ম্যাচে ২৮৯ রানেই থেমে যাওয়া নিউজিল্যান্ড এ ম্যাচে এগিয়েছে ৩৪৪ রান পর্যন্ত। এর চেয়েও বেশী রান অবশ্য নিউজল্যান্ডের আরও ১৬ বার আছে।

     

    কিন্তু আয়ারল্যান্ডের তো এতো রান নেই কখনও ওয়ানডেতে। ১০ বার ৩০০ পেরুনো স্কোর আছে, তবে সর্বোচ্চটা ৩৩১, তাও প্রথম ইনিংসেই।

     

    ইতিহাস বিপক্ষে বলেই কিনা, আইরিশদের ব্যাটিংটাও হলো তেমনই। এমন ম্যাচে যাঁর ভাল একটা শুরু খুব প্রয়োজন ছিল, সেই পল স্টার্লিং-ই ডাক খেলেন ৯ বল খেলে! অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ও এড জয়েস চেষ্টা করলেন, জয়েসের জুটিতে ভাঙলো সে চেষ্টার খেলাঘর। ১৭ রানে অ্যান্ডারসনের বলে রংকিকে ক্যাচ দিলেন জয়েস, ফিফটি থেকে ২ রান দূরে কাগেলেইনের বলে মিলনেকে ক্যাচ দিলেন পোর্টারফিল্ড। আইরিশদের ইনিংসের ভিত্তিও শেষ ওখানেই। এরপর গ্যারি উইলসনই শুধু ছুঁয়েছেন ৩০-এর কোটা।

     

    ৬৩ বল বাকি থাকতেই শেষ হয়েছে আয়ারল্যান্ডের ইনিংস। ম্যাট হেনরি নিয়েছেন ৩ উইকেট, অ্যান্ডারসন ও কাগেলেইন ২টি করে, ১টি করে পেয়েছেন অ্যাডাম মিলনে, স্যান্টনার ও ইশ সোধি।

     

    ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ ম্যাচে ২৪ তারিখে বাংলাদেশ মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ডের।

     

    ম্যাচসেরাঃ টম ল্যাথাম (নিউজিল্যান্ড)  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন