• আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ
  • " />

     

    আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেয়াই লক্ষ্য মাশরাফির

    সিরিজ আগেই জিতে গেছে নিউজিল্যান্ড। সিরিজের প্রেক্ষিতে কালকের ম্যাচটা তাই নিয়মরক্ষার। তবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে আত্মবিশ্বাসটা একধাপ বাড়িয়ে নেওয়ার ভাল একটা সুযোগ হতে পারে এই ম্যাচ। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা মনে করছেন এমনই, ‘প্রত্যেকটা মাচই গুরুত্বপূর্ণ। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে শেষ ম্যাচ, জিততে পারলে ভাল লাগবে, আত্মবিশ্বাসটাও ভাল থাকবে। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, এই ম্যাচ ভালভাবে শেষ করতে পারলে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে সবাই মানসিকভাবে চাঙা থাকবে।’

     

    আগের ম্যাচে আইরিশদের ব্যাটিং ধ্বসিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশী বোলিং লাইন-আপ, বোলারদের গড়ে দেয়া ভিত্তিতে ব্যাটিংটাও হয়েছিল দারুণ। ‘দুইটা বিভাগই গুরুত্বপুর্ণ। শ্রীলঙ্কা সফর থেকেই যদি দেখেন, বোলিংয়ের পারফরম্যান্স উঠানামা করেছে, এটা করবেই। উইকেট অনুযায়ী এসব বদলায়। আগের ম্যাচে যেভাবে বোলিং করেছি, সেভাবে করলে ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যাবে। কালকেও সেরকই ইচ্ছা থাকবে, তবে সবকিছু নির্ভর করছে মাঠে কেমন করছি সেটার ওপর।’

     

     

    নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে বেশ কিছু ভুল-ত্রুটি না করলে সেদিনও জিততে পারতেন বলে ধারণা অধিনায়কের, ‘নিউজিল্যান্ডের সংগে প্রথম ম্যাচে কিছু ভুল না করলে আমরা ম্যাচটি জিতে পারতাম। যে একটি ম্যাচ আছে, ভাল করতে পারলে ভাল লাগবে। আমাদের নতুন করে ভাবার কিছু নাই। ম্যাচে পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে হবে। মাঠে যাতে আমরা আমাদের পরিকল্পনাগুলো কাজে লাগাতে পারি, সেইটার দিকেই নজর থাকবে। স্কোয়াডও সে অনুযায়ীই সাজানো হবে।’

     

    বিদেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে প্রথমবার জেতা হবে কিনা, সেটা জানা যাবে কালকেই। তবে সব মিলিয়ে আয়ারল্যান্ডের সফরটা ভালই কেটেছে বলে মত মাশরাফির। যদিও কন্ডিশন নিয়ে কথা আছে তাঁর, ‘অনুশীলনে সীমিত সুযোগ সুবিধার মধ্যে যা করার ছিল, চেষ্টা করেছি। যদিও আমার মনে হচ্ছে, ইংল্যান্ডের সংগে এখানকার কোনোই মিল থাকবে। সুতরাং, ওখানে গিয়ে যে দুইটা অনুশীলন ম্যাচ আছে সে দুইটা খুব ভালভাবে কাজে লাগাতে হবে।’

     

    ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ ম্যাচের পর চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দুইটি প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত ও পাকিস্তান। ২৭ তারিখ এজবাস্টনে ভারতের পর ৩০ তারিখে ওভালে পাকিস্তানের সঙ্গে খেলবে বাংলাদেশ। আর ১ তারিখে উদ্বোধনী ম্যাচে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে মাশরাফির দল।




     

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন