• বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    'একজন খেলোয়াড় হিসেবেও বোধ হয় কিছুটা সম্মান আমার প্রাপ্য'

    কথাটা বলতে বেশ কষ্টই হচ্ছিল মুশফিকুর রহিমের। একটা সময় আবেগাপ্লুতই হয়ে পড়লেন বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক, চোখের পানিটা কোনোমতে সংবরণ করতে পারলেন। বিপিএলে বরিশাল বুলসের কর্ণধার আবদুল আউয়ালের মন্তব্যের জবাবে আজ সংবাদ সম্মেলনে বেশ ভেঙেই পড়েছিলেন মুশফিক।

    গত বছর বিপিএলে বরিশাল বুলস খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। তবে মুশফিকই ছিলেন সবচেয়ে উজ্জ্বল, দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানও ছিল তাঁর। কিন্তু কাল এক সংবাদ সম্মেলনে বরিশাল বুলসের কর্ণধার আবউল আউয়াল অভিযোগ করলেন, মুশফিকের অধিনায়ক হিসেবে শৃঙ্খলাগত সমস্যা ছিল। প্রশ্ন তুলেছেন তাঁর আত্মনিবেদন নিয়েও।

    সকালে দৈনন্দিন অনুশীলনের পর দুপুরে মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন মুশফিক। সেখানেই এই অভিযোগের জবাবে নিজের আবেগ সংবরণ করতে পারেননি, ‘'‘আপনারা নিশ্চয়ই জানেন আমাকে নিয়ে এমন প্রশ্ন ওঠে না। হ্যাঁ, মাঠের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি মন্তব্য করতে পারেন। বলতে পারেন আমি ভালো খেলোয়াড় নই। তবে আমার শৃঙ্খলা ও দায়িত্ববোধ নিয়ে তিনি যে প্রশ্ন তুলেছেন, খেলোয়াড়দের মোটিভেট করতে পারি না এমন বলেছেন- এটা আমার কাছে খুব খারাপ লেগেছে।’ এটা বলতে বলতেই মুশফিক একটু আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন, ‘দেখুন, অনেক বছর ধরেই দলকে সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছি। একজন খেলোয়াড় হিসেবেও বোধ হয় কিছুটা সম্মান আমার প্রাপ্য।’

    মুশফিকের সঙ্গে ওই সময় পাশেই ছিলেন বিসিবির গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ইসমাইল হায়দার মল্লিক। আশ্বাস দিয়েছেন, আউয়ালের মন্তব্যের ব্যাপারে তাঁর কাছে কারণ জানতে চাওয়া হবে, ‘এটা শোভন নয়, একজন খেলোয়াড়ের নামে এভাবে বলা যায় না। আমরা তাঁকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেব।’

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন