• লা লিগা
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    বার্নব্যুতে সেই 'পরিচিত' রিয়াল

    নতুন লিগমৌসুমে নিজেদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে যেন একেবারেই ‘অচেনা’ রিয়াল মাদ্রিদ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার থেকে ইতোমধ্যেই ৫ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়ার পেছনে খারাপ ‘হোম’ ফর্ম অন্যতম মূল কারণ ‘লস ব্লাঙ্কোস’দের। তবে এইবার আর ভুল করল না রিয়াল! এইবারের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় দিয়ে নিজেদের মাঠে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। গোল করেছেন মার্কো আসেন্সিও এবং মার্সেলো; অন্য গোলটি আত্মঘাতী।

     

    বার্নাব্যুতে ম্যাচের মাত্র দ্বিতীয় মিনিটেই লিড নিতে পারত রিয়াল। ডানপ্রান্ত থেকে আসেন্সিওর পাসে নেওয়া ইস্কোর শট দারুণভাবে রুখে দেন এইবারের গোলরক্ষক মার্কো দিমিত্রোভিচ। তবে বেশিক্ষণ এই জুটিটে আটকে রাখতে পারেননি তিনি। ইস্কো-আসেন্সিওর সমন্বয়েই আসে রিয়ালের প্রথম দুই গোল। ১৭ মিনিটে কর্নার থেকে আসেন্সিওকে পাস দেন ইস্কো। ডানপ্রান্ত থেকে আসেন্সিওর ভাসানো ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়ে বল নিজ জালে ঠেলে দেন ডেভিড লমবান। প্রথম গোলের পর আত্মবিশ্বাসী রিয়াল ব্যবধান দ্বিগুণ করে মিনিট দশেক পরই। এবারও গোলের মূল কারিগর ঐ ইস্কো-আসেন্সিওই। ২৭ মিনিটে ইস্কোর ক্রস থেকে গোল করেন আসেন্সিও।

     

    চলতি বছরে লা লিগার মিডফিল্ডারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোল (১০) এবং অ্যাসিস্ট (৮) এখন ইস্কোরই। ওদিকে মৌসুমের শুরুতে প্রতিনিয়তই গোলের দেখা পেলেও বিগত কয়েক ম্যাচ ধরে ঠিক স্বরূপে ছিলেন না এই স্প্যানিশ তারকা। গোলের পর সতীর্থদের সাথে উদযাপনে দেখা মিললো ‘চাপমুক্ত’ আসেন্সিওর। দল এগিয়ে থাকলেও ম্যাচজুড়ে নিষ্প্রভই ছিলেন রোনালদো।
     

     

    দ্বিতীয়ার্ধে মদ্রিচের পাস থেকে গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন ‘সিআর৭’। অবশ্য রোনালদোর মিসের চেয়ে দিমিত্রোভিচের সেভটাই ছিল দেখার মত। রোনালদোর মত দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও ইস্কোর একটি নিশ্চিত গোল দুর্দান্তভাবে রখে দিয়েছিলেন এইবারের গোলরক্ষক। অন্যদিকে রিয়ালের আক্রমণের জোয়ারে এইবারকে খুব কমবারই দেখা গেছে প্রতিপক্ষের ডিবক্সে।

     

    কিন্তু রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তের ভুক্তভোগী হতে হয়েছে এইবারকে। ৫৫ মিনিটে তাকাশি ইনুইকে পেছন থেকে ট্যাকেল করে ডিবক্সে ফেলে দিলেও পেনাল্টির বাঁশি বাজাননি রেফারি। ম্যাচের বাকিটা সময় রিয়ালের খেলোয়াড়রা ব্যস্ত ছিলেন রোনালদোকে গোল করানোয়। কিন্তু শেষমেশ খালি হাতেই ফিরতে হয়েছে পর্তুগিজ অধিনায়ককে। রোনালদো খালি হাতে ফিরলেও গোল পেয়েছেন বদলি হিসেবে নামা মার্সেলো। ৮২ মিনিটে দারুণ এক প্রতি আক্রমণে বেনজেমার পাস থেকে এইবারের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন এই লেফটব্যাক।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন