• লা লিগা
  • " />

     

    পেশাদার ফুটবল না খেলেই রোনালদো-মেসিদের মঞ্চে!

    লন্ডনের প্যালাডিয়াম থিয়েটারের লাল গালিচায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, লিওনেল মেসি, নেইমারদের সাথে আজ থাকবেন অনেকেই। বর্তমান ও সাবেক ফুটবলারদের মিলনমেলায় লন্ডনেই আজ দেয়া হবে ফিফার বর্ষসেরা খেতাব। সেখানে থাকবেন 'অচেনা' এক নারী ফুটবলারও। ১৮ বয়সী ডেয়না কাস্তেয়ানস 'অচ্ছুত' কেউ নন, আমন্ত্রিত অতিথি। শুধুই অতিথি নন রোনালদো, মেসিদের সাথে একই কাতারে তিনিও ফিফার বর্ষসেরা খেতাবের জন্য মনোনীত একজন! 



    ভেনেজুয়ালার নারী ফুটবলার কাস্তেয়ানসের গল্পটা শিহরণ জাগানোর মতোই। পেশাদার লিগে খেলার সৌভাগ্য এখনও হয়নি তাঁর, কোনোদিন খেলেননি অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপেও! পড়াশুনা করছেন ফ্লোরিডা স্টেট ইউনিভার্সিটিতে, চার বছর মেয়াদী কমিউনিকেশন কোর্সের দ্বিতীয় বর্ষে। বর্ষসেরা নারী ফুটবলারদের মনোনীত তিনজনের ভেতর একজন হওয়ার ঘটনাটা তাঁর জন্য ছিল মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি হওয়ার মতো। মনোনয়ন পাওয়ার খবরটাও জেনেছেন টুইটার থেকে। এর কিছুক্ষণ আগেই ফুটবল খেলে বাড়ি ফিরেছিলেন কাস্তেয়ানস। 

    ২০১৬ সালে দক্ষিণ আমেরিকার অনূর্ধ-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন তিনি।এরপর অনূর্ধ্ব-১৬ বিশ্বকাপে করেছেন ৫ গোল। নজর কেড়েছিলেন তখনই। কিন্তু তাঁর মনোনয়নের খবর সন্তুষ্ট করতে পারেনি সবাইকে। অনেকেই ভাবছেন ফিফার এমন সিদ্ধান্তের পেছনে অন্য কোনো লক্ষ্য আছে, নতুন কাউকে 'পোস্টার গার্ল' করার জন্যই তাঁকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

    কাস্তেয়ানোসের সাথে মনোনীত অন্য দুজন হলেন লিকা মার্টিনস ও কার্টি লয়েড। আর ফিফা বর্ষসেরা খেতাদের জন্য রোনালদোর সাথে আছেন মেসি ও নেইমার। গত মৌসুমে লা লিগা ও চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতে বর্ষসেরা খেতাব পাওয়ার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে আছেন রোনালদো। রিয়াল মাদ্রিদ ম্যানেজার জিনেদিন জিদানও রোনালদোর মতোই এগিয়ে আছেন বর্ষসেরা কোচের তালিকায়।  
                   

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন