• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    গোলের জন্য খুদে ভক্তের পাঁচ পাউন্ড উপহার

     

    প্রিয় ফুটবলারকে অনেকেই উপহার পাঠান। কেউ ফুল, কেউবা কার্ড, কেউ হয়ত অন্য উপহার সামগ্রী। হাডার্সফিল্ড টাউন ক্লাবের এক ক্ষুদে ভক্ত এবার যা করেছে, সেটা অবাক করেছে সবাইকে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে গত সপ্তাহের জয়ের ম্যাচে গোল করা অ্যারন মুইকে পাঁচ পাউন্ডের নোট ‘উপহার’ হিসেবে পাঠিয়েছে ৯ বছর বয়সী অ্যাডাম ভানা।

     

    বাবার হাত ধরে গত শনিবার হাডার্সফিল্ড টাউনের ম্যাচ দেখতে গিয়েছিল অ্যাডাম। সেখানে সিটের নিচে ৫ পাউন্ডের একটি নোট পায় সে। অ্যাডামের বাবা মো বলছেন, মাঠেই নোটটা মুইকে দিতে চেয়েছিল সে, “প্রথমে তো সে সিদ্ধান্তই নিতে পারছিল না কী করবে। সে হয়ত ক্লাবের ফান্ডে টাকা দিতে চাইছিল রিয়াল থেকে রোনালদোকে কেনার জন্য! তারপর সে মুইকেই সেটা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। সে বলছিল, টাকাটা যেহেতু আমাদের না তাই এটা নিজের কাছে রাখা উচিত হবে না। আমরা হাডার্সফিল্ড কোচের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু তিনি সেদিন অনেক ব্যস্ত ছিলেন। শেষমেশ অ্যাডাম সিদ্ধান্ত নিল সে চিঠি লিখেই টাকা পাঠাবে ক্লাবের কাছে।”

     

    ক্লাবের কাছে লেখা অ্যাডামের সেই চিঠিই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। চিঠিতে সে লিখেছে, “আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাথে ম্যাচটা দেখেছি। মাঠে একটা ৫ পাউন্ডের নোট পেয়েছিলাম। সেদিন মুই খুব ভালো খেলেছে। তাঁকে কি এই টাকাটা দেওয়া যাবে?”

     

    ক্ষুদে ভক্তর এই আবেগ ছুঁয়ে গেছে মুইকেও। তিনি জানিয়েছেন, অ্যাডামের সাথে অবশ্যই দেখা করবেন। টুইটারে বহু মানুষ অ্যাডামের এই ভালোবাসায় মুগ্ধ। অ্যাডামের বাবা মনে করেন মুইয়ের সাথে দেখা হলে সেটা তার ছেলের জন্য দারুণ অভিজ্ঞতা হবে, “মুইয়ের টুইট আমি দেখেছি। ক্লাব হয়ত তার সাথে দেখা করার সুযোগ করে দেবে। এই ক্লাব একটা পরিবারের মতো। মানুষ যেভাবে আমার ছেলের ব্যাপারে বলছে, সেটায় আমি সত্যিই গর্বিত।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন