• লা লিগা
  • " />

     

    স্বাধীন কাতালুনিয়া থেকে শুন্য হাতে ফিরল রিয়াল মাদ্রিদ

    গত সপ্তাহেই স্বাধীনতা ঘোষণা করেছে কাতালুনিয়া। নতুন স্বাধীন হওয়া দেশের সবচেয়ে অখ্যাত ক্লাব বোধ হয় জিরোনাই। নিজেদের মাঠে তাঁদের প্রতিপক্ষ ছিল স্পেনের ইতিহাসের সফলতম দল, রিয়াল মাদ্রিদ। স্পেন-কাতালুনিয়ার সাম্প্রতিক বিদ্বেষ এবং রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে জিরোনা-রিয়াল ম্যাচটি স্থগিত করার কথাও ভাবছিল লা লিগা কর্তৃপক্ষ। কিন্তু শেষমেশ ঠিকই মাঠে গড়িয়েছে ‘দুই দেশের দুই ক্লাব’-এর ম্যাচটি। সেই লড়াইয়ে রিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়ে দিয়েছে জিরোনা! 

    ২০০৮ সালে আলমেরিয়ার পর এবারই প্রথম লা লিগার নবাগত কোনো দলের কাছে হারলো ‘লস ব্লাঙ্কোস’রা। এর আগে কখনও লা লিগায় খেলাই হয়নি জিরোনার, অথচ বার্সেলোনাকেও তাদের বিপক্ষে জিততে ঘাম ঝরাতে হয়েছিল। আর অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সাথে ড্র করেছিল জিরোনা। এবার রিয়াল মাদ্রিদকে সেখান থেক শুন্য হাতে ফেরাল কাতালান ক্লাবটি। আর প্রথম দেখায় দ্বিতীয় বিভাগ থেকে উঠে আসা কোনো দলের কাছে রিয়াল হারল ২৭ বছর পর!

     

     পাবলো মাফেও এবং ক্রিশ্চিয়ান স্টুয়ানির দুটি শট ফিরে বারপোস্টে লেগে ফেরত না আসলে জয়ের ব্যবধানটা অবশ্য আরও বড় হতে পারতো জিরোনার। ম্যাচে অবশ্য শুরুতেই অনুমিত ভাবে এগিয়ে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদই। ১১ মিনিটে মাফেওর শট বারে লেগে ফিরে আসলে সেখান থেকে দারুণ এক প্রতি আক্রমণে রিয়ালকে এগিয়ে দিয়েছিলেন ইস্কো। সার্জিও রামোসের পাস থেকে করিম বেনজেমা হয়ে বল পান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। বাঁ-প্রান্ত থেকে ভেতরে ঢুকে তার নেওয়া জোরালো শট জিরোনা গোলরক্ষক রুখে দিলেও ফিরতি বল জালে পাঠান ইস্কো। প্রথমার্ধের ৩৪ মিনিটে স্টুয়ানির শট বারে প্রতিহত না হলে তখনই সমতায় ফিরতে পারতো তারা। প্রথমার্ধ শেষে লিড নিয়ে ফিরলেও ম্যাচে একেবারেই প্রাধান্য বিস্তার করতে পারেনি জিনেদিন জিদানের দল।

     

     

    দ্বিতীয়ার্ধে নতুন উদ্যমে নামা জিরোনাকে এরপর সমতায় ফিরতে খুব বেশি সময় সপেক্ষা করতে হয়নি। রিয়ালের নড়বড়ে রক্ষণের সুযোগে দলকে সমতায় ফেরান সেই স্টুয়ানিই। ৫৪ মিনিটে পন্সের পাস থেকে নাচো ফার্নান্দেজকে দারুণভাবে কাটিয়ে রিয়াল গোলরক্ষক কিকো ক্যাসিয়াকে পরাস্ত করেন এই উরুগুইয়ান। সমতায় ফিরতে পেরেই বুনো উল্লাসে মাতা সমগ্র স্তাদিও মন্তিলিভির উৎসবের মাত্রাটা এর কিছুক্ষণ পরই কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেন স্ট্রাইকার ক্রিশ্চিয়ান পর্তু।

    ৫৮ মিনিটে স্টুয়ানির শট ক্যাসিয়া ফিরিয়ে দিলে ডিবক্সে বল পান মাফেও। তার ক্রস থেকে দেখার মতো এক ‘ফ্লিক’-এ দলকে এগিয়ে দেন পর্তু। তবে জিরোনার এই গোল ঘিরে আছে বিতর্ক। রিপ্লেতে দেখা গেছে, গোলের সময় অফসাইডে ছিলেন পর্তু। গোলের পর জিরোয়ান খেলোয়াড়, সমর্থকদের উদযাপনের মাঝে ঠায় দঁড়িয়ে ছিলেন জিদান, রোনালদো, টনি ক্রুসরা। ম্যাচে ফেরার আশায় আশরাফ হাকিমি, মার্সেলোর বদলে লুকাস ভাজকেজ এবং মার্কো অ্যাসেন্সিওকে নামিয়ে দিলেও ফলা পাননি জিদান। ওদিকে প্রতি আক্রমণে স্টুয়ানি আরও একটি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করলে আর ব্যবধানটা আর বাড়ানো হয়নি জিরোনার।

     

    লিগে মাত্র ১০ ম্যাচ শেষেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সার চেয়ে ৮ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়ল রিয়াল। আজকের হারে লা লিগায় প্রতিপক্ষের মাঠে রিয়ালের টানা ১৩ ম্যাচ জয়ের রেকর্ডটাও হাতছাড়া হয়েছে জিদানের দলের। ২০ পয়েন্ট নিয়ে অ্যাটলেটিকোর চেয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে তিন নম্বরে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। ২৪ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে ভ্যালেন্সিয়া। আর ২৮ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে বার্সা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন