• চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    মরিনহোর 'নির্দেশেই' পেনাল্টি নেননি লুকাকু

     

    প্রথমার্ধে পেনাল্টিটা নিয়েছিলেন অ্যান্থনি মার্শিয়াল, তবে গোল করতে পারেননি। দ্বিতীয়ার্ধে যখন বেনফিকার বিপক্ষে আবারো পেনাল্টি পেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ততক্ষণে মার্শিয়াল মাঠ থেকে উঠে গেছেন। রোমেলু লুকাকু পেনাল্টি নিতে এগিয়েও যান বক্সের দিকে। কিন্তু সবাইকে অবাক করে ডাগআউট থেকে কোচ হোসে মরিনহো ‘নির্দেশ’ দেন, লুকাকু না, ড্যালে ব্লিন্ডই নেবেন পেনাল্টি। চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ শেষে মরিনহো বলছেন, তার এই সিদ্ধান্ত পুরোটাই ‘কৌশলগত’।

    ৪৭৭ মিনিটের 'গোলখরা' চলছে লুকাকুর। ৭৭ মিনিটে পাওয়া সেই পেনাল্টি থেকে সেই বহু আরাধ্য গোলটির জন্যই হয়ত এগিয়ে গিয়েছিলেন মার্শিয়ালের অনুপস্থিতিতে। কিন্তু কোচের সিদ্ধান্তে সেটা নেওয়া হয়নি। মরিনহো জানালেন এর পেছনের যুক্তি, “এখানে আমি এত কথার প্রয়োজন দেখছি না। অনুশীলনের ওপর ভিত্তি করেই আমার সিদ্ধান্ত ছিল লুকাকু পেনাল্টি নেবে না। আমি সবসময় সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ারই চেষ্টা করি। মার্শিয়াল সবসময় পেনাল্টি নেয়, হেরেরা ও লুকাকু পেনাল্টি নিতে চেয়েছিল, কিন্তু আমি ব্লিডকেই সেই দায়িত্ব দিয়েছি।”

     

     

    মরিনহো বলছেন, ফুটবলাররা তার সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েছেন, “ফুটবলাররা আমার সিদ্ধান্তের সম্মান জানিয়েছে। আমরা অনুশীলন করি, পর্যবেক্ষণ করি কে কোন কাজে ভালো। মার্শিয়াল এর আগে কোনো পেনাল্টি মিস করেনি, অনুশীলনেও সে তিনজন গোলকিপারের বিরুদ্ধে এটা ভালো করেছে। দ্বিতীয়ার্ধে সে না থাকায় আমি ব্লিন্ডকেই যোগ্য ভেবেছি।”

    শেষ পর্যন্ত বেনফিকাকে ২-০ গোলে হারিয়ে শেষ ১৬ এর পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে ইউনাইটেড।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন