• বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    জাতীয় দলের চ্যালেঞ্জ নিতে 'প্রস্তুত' মাহমুদ

    চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের সঙ্গে আর থাকছেন না, মোটামুটি নিশ্চিত হয়ে গেছে তা। তার ঘনিষ্ঠজন খালেদ মাহমুদ সুজনের কাছে খবরটা এসেছে বিস্ময় হয়েই। ব্যাপারটা তার কাছে পরিষ্কার নয়, পরিষ্কার নয় অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ দলের দায়িত্বটা তার কাঁধেই এসে পড়বে কিনা সেটাও। তবে বর্তমান বোর্ড পরিচালক ও জাতীয় দলের ম্যানেজার বলছেন, বোর্ড তাকে বিবেচনা করলে তিনি প্রস্তুতই আছেন। 

    বিসিবি এখনও নিজেরাই পরিষ্কার হতে পারেনি, হাথুরুসিংহে আসলে কী কারণে দায়িত্ব ছেড়েছেন। তবে সবাই বলছেন, বিসিবির উচিৎ এখন সামনে তাকানো। সেই সামনে তাকিয়েই শোনা যাচ্ছে মাহমুদের নাম, যেটা শুনতে পাচ্ছেন তিনি নিজেও, ‘আমি জানিও না। মানুষ কী বলছে, কোথা থেকে শুনে বলছে, জানিও না। অবশ্যই আমরা চাইব বাইরে থেকে ভাল একজনকে আনতে। আজকে আমি নিজেও দুই চারজনের কাছে শুনলাম, আমার নাম আসছে, কিভাবে আসছে, জানিও না। কেন আসছে, নিশ্চিত না। এটা আসলে সময়ের ব্যাপার। বোর্ড থেকেই সিদ্ধান্ত আসবে। আমার ব্যাপারটা আমি পরিষ্কার না।’

     

     

     

    তবে চ্যালেঞ্জ সামনে আসলে পিছপা হবেন না বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসের কোচ, ‘অনেক চ্যালেঞ্জই নিয়েছি। অধিনায়কত্ব যখন প্রথম পেয়েছিলাম, ভাঙ্গা দলকে জোড়া লাগানোর বিশাল দায়িত্ব ছিল। আর কোচিংয়ে অনেকদিন ধরেই আছি, “লেভেল থ্রি” অনেক আগেই করেছি। বাংলাদেশ জাতীয় দলেও ছিলাম সহকারি কোচ হিসেবে। এ পর্যায়ে এসে আসলে উদ্দীপ্ত করার ব্যাপারটাই থাকে, আমার মনে হয় না জিনিসটা খুবই কঠিন। আমি তো জানি না দায়িত্ব পাব কিনা, পেলে অবশ্যই আমি প্রস্তুত।’

     

    বাংলাদেশের জন্য একজন দেশী কোচের প্রয়োজনীয়তাও অনুভব করেন তিনি সবসময়ই, ‘এটা সবসময়ই আমি বলি। দেশী কোচের একটা ব্যাপার আছে। তবে এটা চিন্তা করতে হবে, কে হলে বেশি ভাল হবে। এর আগে আমি ছিলাম, সালাহউদ্দিন “কোচিং সিস্টেম”-এর মধ্যে ছিল। স্থানীয় কোচের দরকার আছে, যোগাযোগের একটা ব্যাপার আছে। (সব মিলিয়েই) আমরা সবাই চাই দেশের ক্রিকেট এগিয়ে যাবে।’


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন