• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    পিকফোর্ড 'দেয়াল' ভাঙতে পারল না জার্মানি

     

    সেই ১৯৮২ সালের স্পেন বিশ্বকাপে পশ্চিম জার্মানির সাথে ড্র করেছিল ইংল্যান্ড। এরপর যতবারই মুখোমুখি হয়েছে দুই দল, গোলের দেখা পেয়েছেন কেউ না কেউ। তবে গতকাল ওয়েম্বলিতে ৩৫ বছর পর গোলশূন্যভাবেই শেষ হয়েছে দুই দলের প্রীতি ম্যাচ। অভিষেক হওয়া ইংলিশ গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ডে দৃঢ়তায় জার্মান ফরোয়ার্ডদের রুখে দিয়েছে গ্যারেথ সাউথগেটের ইংল্যান্ড।

     

     

     

    ২৩ বছর বয়সী পিকফোর্ডকে ম্যাচের শুরু থেকেই চাপে রাখে জার্মানরা। তবে পোস্টের সামনে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে প্রথমার্ধে বেশ কয়েকটি সেভ করেন। ৯ মিনিটের মাথায় জুলিয়ান ড্রাক্সলারের পাসে বল পান লেরয় সানে। বক্সের ভেতর থেকে তাঁর জোরালো শট বাঁচিয়ে দেন পিকফোর্ড। ২০ মিনিটে সানের শট পোস্টে লেগে ফিরে যায়। দুই মিনিট পর গোলের সুযোগ টিমো ওয়েরনার। মেজুত অজিলের পাসে তাঁর শটও ঠেকিয়ে দেন পিকফোর্ড। পরের মিনিটে আবারো সুযোগ নষ্ট করেন সানে।

     

    ৩৭ মিনিটে সুযোগ পেয়েছিলেন ইংল্যান্ডের ড্যানি রোজ, তাঁর শটে বল জালে জড়ানোর আগেই ধরে ফেলেন জার্মান কিপার টের স্টেগান। ৪২ মিনিটে ট্যামি আব্রাহামের শটও বাঁচান স্টেগান। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই জেমি ভার্ডির হেড বাঁচান বার্সেলোনা কিপার। ম্যাচের বাকি সময়ে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি দুই দলের কেউই। ২০১০ সালের অক্টোবরে শেষবার ওয়েম্বলিতে মন্টেনিগরোর বিপক্ষে গোলশূন্যভাবে ড্র করেছিল ইংল্যান্ড।

     

    অন্য প্রীতি ম্যাচে ওয়েলসকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স। শুরু থেকেই গ্যারেথ বেলহীন ওয়েলসকে চেপে ধরে ফরাসি ফরোয়ার্ডরা। বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার পর ১৭ মিনিটে আঁতোইন গ্রিজমানের গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। করেন্তিন তোরেসোর পাসে বল পান গ্রিজমান, বা পায়ের শটে ওয়েলস গোলরক্ষককে বোকা বানান। ৭১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অলিভিয়ার জিরোদ। কিলিয়ান এমবাপ্পের দারুণ এক পাসে বল জালে জড়ান। এমবাপ্পে, উমতিতিরা আরও কয়েকটি মিস না করলে বড় ব্যবধানেই জয় পেতে পারত ফ্রান্স।

     

     

    রাতের বাকি ম্যাচের চেয়ে কয়েকগুণ উত্তেজনা ছড়িয়েছে বেলজিয়াম-মেক্সিকো ম্যাচ। রোমেলু লুকাকুর জোড়া গোলে মেক্সিকোর সাথে ৩-৩ গোলে ড্র করেছে বেলজিয়াম। ১৭ মিনিটে ইডেন হ্যাজার্ডের গোলে এগিয়ে যায় বেলজিয়াম। ৩৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে সমতা আনেন আন্দ্রেস গুয়ারদাদো।

     

    ৫৫ মিনিটে ড্রাইস মারটেনসের পাসে দলকে এগিয়ে দেন লুকাকু। তবে লিড এক মিনিটও ধরে রাখতে পারেনি দল। বক্সের বাইরে থেকে হারভিং লোজানোর দুর্দান্ত এক শটে ম্যাচে আবারো সমতা ফেরায় মেক্সিকো। ৬০ মিনিটে মেক্সিকোকে এগিয়ে দেন এই লোজানোই। ৭০ মিনিটে মারটেনসের পাসেই ম্যাচে সমতা আনেন লুকাকু। এই নিয়ে টানা ১৪ ম্যাচে অপরাজিত থাকল বেলজিয়াম।

     

    এদিকে প্রীতি ম্যাচে জাপানকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল। ব্রাজিলের হয়ে গোল করেন নেইমার, মার্সেলো ও গ্যাব্রিয়েল হেসুস। জাপানের হয়ে একটি গোল শোধ করেন তমোয়াকি মাকিনো। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন