• ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান
  • " />

     

    কাভানির জোড়া গোলে পিএসজির সহজ জয়

     

    পিএসজির ম্যাচ মানেই যেন তাঁর গোল। মৌসুমের শুরু থেকেই প্রায় প্রতি ম্যাচেই গোলের দেখা পেয়েছেন এডিসন কাভানি। ঘরের মাঠে নঁতের বিপক্ষে তাঁর জোড়া গোলেই ৪-১ ব্যবধানের সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পিএসজি।

     

     

     

    ম্যাচের ৭ মিনিটেই দলকে এগিয়ে নিতে পারতেন কাভানি। নেইমারের পাসে বক্সের ভেতর বল পেয়েও পোস্টের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন। ১২ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে দানি আলভেসের জোরালো শট ঠেকিয়ে দেন নঁতে গোলরক্ষক। পাঁচ মিনিট পর গোলের সুযোগ এসেছিল নঁতের সামনেও, এমিলিয়ানো সালার হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ডি মারিয়া, হাভিয়ের পাস্তোরে, থিয়াগো সিলভারাও বেশ কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করেন।

     

    ৩৮ মিনিটে ম্যাচের প্রথম গোল করেন কাভানি। পাস্তোরের পাসে বল পেয়ে জালে জড়াতে ভুল করেননি। ৪ মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ডি মারিয়া। আলভেসের নেওয়া কর্নার থেকে বল পেরে দারুণ এক শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন।

     

    দ্বিতীয়ার্ধের ৬০ মিনিটে ব্যবধান কমায় নঁতে। লিও ডুবইসের পাসে বক্সের ভেতরে বল পান প্রেজুইস নাকউলমা। তাঁর শট ঠেকানোর কোনো উপায়নি ছিল না পিএসজি গোলরক্ষকের সামনে। তিন মিনিট পরেই পিএসজির হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন পাস্তোরে।

     

     

     

    শেষ বাঁশি বাজার ১১ মিনিট আগে নিজের দ্বিতীয় গোলের দেখা পান কাভানি। এই মৌসুমে লিগে ১৩ ম্যাচে কাভানির গোলসংখ্যা দাঁড়াল ১৫। ১৯৭১-৭২ মৌসুমে সেন্ট এতিয়েনের হলে সালিফ কেইটা ১৩ ম্যাচে করেছিলেন ১৫ গোল, এরপর ফরাসি লিগে কেউই এটা ছুঁতে পারেননি। ম্যাচের একবারে অন্তিম মুহূর্তে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন পুরো ম্যাচে নিজের ছায়া হয়ে থাকা নেইমার। কাভানির বাড়ানো বলে তাঁর শট জালে জড়ানোর আগেই ধরে ফেলেন কিপার।

     

    এই জয়ে ১৩ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষেই থাকল পিএসজি।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন