bracket bracket
bracket bracket
  • ফুটবল

কুতিনিয়োকে ছাড়া ক্লপের প্রথম পরীক্ষা

সিরি আতে কোনো খেলা নেই এ সপ্তাহে। লা লিগায় রিয়াল, বার্সার প্রতিপক্ষকেও 'সহজ' বলা যাবে না। তবে, প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুল- ম্যানসিটির লড়াইটা যে আলাদা করে আলো কাড়বে সেটা তো এখনই আঁচ করা যাচ্ছে।

 

 

 

 


সিটির বিপক্ষে শুরু লিভারপুলের কুতিনিয়ো-পরবর্তী যুগঃ

ফিলিপ কুতিনিয়ো নেই, তাঁকে ছাড়া প্রথম ম্যাচটাতেই লিভারপুলের জন্য অপেক্ষা করছে কঠিন পরীক্ষা। রবিবার নিজেদের মাঠ অ্যানফিল্ডে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে শুরু হচ্ছে লিভারপুলের কুতিনিয়ো-পরবর্তী যুগ। অবশ্য অ্যানফিল্ডে সিটির বিপক্ষে শেষ চার দেখায় প্রতিটিতেই জিতেছে লিভারপুল। কিন্তু এবার হিসাবটা বেশ ভিন্ন। দুর্দান্ত ফর্মে আছে ইপিএল-এর একমাত্র অপরাজিত দল সিটি। টেবিলের দুই নম্বরে থাকা নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাথে পয়েন্ট ব্যবধানটা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১৫-তে। মৌসুমের শুরুতে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে সিটির কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

 

 

ইনজুরির কারণে গত সপ্তাহ দুয়েক মাঠের বাইরে থাকলেও সিটির বিপক্ষের ম্যাচ দিয়েই ফিরছেন মোহাম্মদ সালাহ। সেই সাথে 'অল রেড'দের হয়ে মাঠে নামবেন ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডাইকও, যাকে কিনতে উঠেপড়ে লেগেছিল সিটিও।

আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে সিটিকে আটকাতে রক্ষণভাগেই বেশি মনোযোগী হতে হবে ক্লপকে। এই মৌসুমে রক্ষণের জন্যই একাধিক ম্যাচে পয়েন্ট হারিয়েছে তার দল। সেক্ষেত্রে ভ্যান ডাইকের সংযোজন অবশ্য কিছুটা উন্নতি ঘটাতে পারে লিভারপুলের রক্ষণে।


কুতিনিয়ো  চলে যাওয়ার পর আক্রমণভাগের গুরু দায়িত্বটা একার কাঁধেই নিতে হবে মোহাম্মদ সালাহকে। চলতি মৌসুমে একেবারেই অধারাবাহিক সাদিও মানেকেও ফিরতে হবে পুরনো ফর্মে।  ধারাবাহিকতার অভাবে তাকে একাধিকবার বেঞ্চে বসিয়ে রাখতেও দ্বিধান্বিত হননি ক্লপ। তবে কুতিনিয়ো না থাকায় সিটির বিপক্ষে মানের শুরু থেকেই খেলার সম্ভাবনাটাই বেশি। আসলে অনেকগুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করছে লিভারপুলের ভাগ্য।

পেপ গার্দিওলা অবশ্য এই ম্যাচে পাচ্ছেন গ্যাব্রিয়েল হেসুসকে। কেভিন ডি ব্রুইন , সার্জিও আগুয়েরো, লিরয় সানেদের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে একাধিক দল। আর রহিম স্টার্লিংয়ের জন্য ম্যাচটার গুরুত্ব তো একটু বেশিই! খেলা লিভারপুলের মাঠে হলেও তাই ম্যান সিটিকেই এগিয়ে রাখতে হচ্ছে। 

রবিবার রাত ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। সরাসরি সম্প্রচার করবে স্টার স্পোর্টস সিলেক্ট এইচডি ১ এবং এইচডি ২।

 

লেস্টার সিটির বিপক্ষে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে মাঠে নামবে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন-এ থাকা চেলসি। আর্সেনালের বিপক্ষে ড্র না করলে ইউনাইটেডকে টপকে টেবিলের দুইয়েই থাকতো 'ব্লুজ'রা। আর সোমবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে স্টোক সিটির মুখোমুখি হবে হোসে মরিনহোর দল। ওয়েম্বলিতে এভারটনকে আতিথেয়তা দেবে ৪১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পাঁচ-এ থাকা টটেনহাম হটস্পার্স। এভারটনের বিপক্ষে জোড়া গোল করলেই টেডি শেরিংহামকে টপকে স্পার্সের হয়ে ইপিএল-এ সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড নিজের করে নেবেন হ্যারি কেন।  স্পার্সের চেয়ে দুই পয়েন্ট নিয়ে ছয় নম্বরে থাকা আর্সেনালের প্রতিপক্ষ বোর্নমাউথ।

 

'বধ্যভূমি' আনোয়েতায় বার্সা, রিয়ালের প্রতিপক্ষ ভিয়ারিয়ালঃ

প্রায় বছর তিনেক দ্বিতীয় বিভাগে কাটানোর পর ২০১০ সালে লা লিগায় ফিরে আসে রিয়াল সোসিয়েদাদ। তখন থেকেই নিজেদের মাঠ আনোয়েতায় বার্সার বিপক্ষে লা লিগায় এখনও অপরাজিত সোসিয়েদাদ (৫ জয়, ২ ড্র)। এই রবিবার আবারও সেই 'অপয়া' আনোয়েতায়ই ফিরছে বার্সা। লা লিগার টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্সার সাথে দুই নম্বরে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের পয়েন্টের ব্যবধান ৯। সেই সাথে সেল্টা ভিগোকে দুই লেগ মিলিয়ে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত করে কোপা ডেল রে'র শেষ আটেও জায়গা করে নিয়েছে এর্নেস্তো ভালোভার্দের দল। লিওনেল মেসির পাশাপাশি লুইস সুয়ারেজও আছেন দারুণ ফর্মে। মধ্যমাঠ থেকে গোলের যোগান দিচ্ছেন ব্রাজিলিয়ান পাওলিনিয়োও। ইনজুরির কারণে রক্ষণভাগে স্যামুয়েল উমতিতির অনুপস্থিতি একেবারেই বুঝতে দিচ্ছেন না থমাস ভার্মাইলেন। সব মিলিয়ে নিজেদের সেরা অবস্থানে থেকেই সোসিয়াদাদের মাঠে যাচ্ছে বার্সা।

 

তবে প্রতিপক্ষে যখন আনোয়েতায় সোসিয়েদাদ, তখন অবশ্য এসব ফর্মের কেতাবি পরিসংখ্যান খাটে না- এমন নিদর্শনই মিলছে গত কয়েক বছর ধরে। ১৪(১৫) জানুয়ারি বাংলাদেশ সময় রাত ১ঃ৪৫ টায় অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। সরাসরি সম্প্রচার করবে টেন ২।

 

 

বার্সা যেমন আছে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে, অন্যদিকে নিজেদের হারিয়ে খুঁজছে রিয়াল মাদ্রিদ। সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে গত সপ্তাহে শেষ দিকে গোল হজম করে ড্র করে জিনেদিন জিদানের দল। বার্সার চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরেই থেকে গেছে ইউরোপ এবং স্পেনের চ্যাম্পিয়নরা। তবে রিয়ালের খারাপ সময়ে আশা দেখাচ্ছে গ্যারেথ বেলের ফর্মে ফেরা। ইনজুরি কাটিয়ে ফেরার পর থেকেই দারুণ ফর্মে থাকা এই ওয়েলশ তারকা সেল্টার বিপক্ষে করেছেন জোড়া গোল।

একের পর এক গড়পড়তা পারফরম্যান্সের পরও জিদান সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এই দলবদলে কাউকেই কিনছে না 'লস ব্লাঙ্কোস'রা। নড়বড়ে রক্ষণের পাশাপাশি আক্রমণভাগেও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ছিলেন একেবারেই নিষ্প্রভ। ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে তাই জয়ের বিকল্প নেই জিদানের দলের সামনে। ইনজুরির কারণে ম্যাচটি মিস করবেন সার্জিও রামোস এবং করিম বেনজেমা। শনিবার (জানুয়ারি  ১৩) রাত ৯ঃ১৫টায় অনুষ্ঠিত হওয়া ম্যাচটি দেখাবে টেন ২।

 

বায়ার্ন এবং বাকিরাঃ

কার্লো আঞ্চেলত্তির অধীনে মৌসুমের শুরুটা একেবারেই ভাল যায়নি বায়ার্ন মিউনিখের। একটা সময় তো টেবিলের চার নম্বরেও নেমে গিয়েছিল 'বাভারিয়ান'রা। কিন্তু আঞ্চেলত্তির বদলি হিসেবে ইয়ুপ হেইঙ্কেসের প্রত্যাবর্তনের পর থেকেই যেন স্বরূপে ফিরতে শুরু করেছে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। টানা জয়ে টেবিলের শীর্ষস্থানটাও পুনরোদ্ধার করেছেন রবার্ট লেভান্ডফস্কিরা। সেই সাথে দুই নম্বরে থাকা শালকের সাথে পয়েন্ট ব্যবধান গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১১-তে।

 

 

এই সপ্তাহে বুন্দেসলিগায় টেবিলের উপরের দিকে থাকা দলগুলোর প্রত্যেকেই মুখোমুখি হচ্ছে একে-অপরের। শীর্ষস্থানে থাকা বায়ার্নের প্রতিপক্ষ টেবিলের চার নম্বর দল বায়ার লেভারকুসেন। শালকের বিপক্ষে মাঠে নামবে আরবি লাইপজিগ। উলভসবার্গকে সিগনাল ইদুনা পার্কে আতিথেয়তা দেবে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। আর একেবারে তলানীর দল কোলোনের প্রতিপক্ষে বরুশিয়া মুনশেনগ্লাডবাখ। লেভারকুসেন, ডর্টমুন্ড, মুনশেনগ্লাডবাখ, লাইপজিগ- এই চার দলের প্রত্যেকেরই পয়েন্ট ২৮। পয়েন্ট খোয়ালেই পিছিয়ে পড়তে হবে ইউসিএল-এর দৌড়ে। এমন সমীকরণের কারণে এই সপ্তাহে বুন্দেসলিগার খেলাগুলোতে একটু হলেও উত্তাপটা বেশি থাকবে- তা অবশ্য বলাই যায়।