• ক্রিকেট

২০১৯ বিশ্বকাপ - এবারের আসরে বিবর্ণ শ্রীলঙ্কা দল

পোস্টটি ১১৪৮ বার পঠিত হয়েছে

বিশ্বকাপের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ক্রিকেট ভক্তদের মধ্যে শুরু হয়েছে কোন দল কতটা শক্তিশালী ট্রফি ছোঁয়ার জন্যে। সে হিসেবে শ্রীলঙ্কা দল নেই এবার হট ফেবারিট সিটে। ছিয়ানব্বইর বিশ্বকাপ জয়ী দল কঠিন সমীকরণের ভিতর দিয়ে যেতে পারে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে। দলে নেই তেমন অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ খেলোয়াড়। তাই ‘শ্রী’ হারিয়ে অনেকটাই বিবর্ণ এখন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশে কোচের দায়িত্বে থাকা চন্ডিকা হাতুরুসিংহে কে নিজ দেশ শ্রীলঙ্কায় নেওয়ার জন্য চেস্টা চালানো হয়। শেষ পর্যন্ত হাতুরু এখন শ্রীলঙ্কার কোচ হয়ে যেন দলটি অন্ধকারে নিমজ্জিত। এই বিশ্বকাপে আলোচনা থেকে দূরে বলা বলা যায় দ্বীপের দেশটিকে।     

459680_3138454_SL-squad_updates

শ্রীলঙ্কা দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড   

২০১৭ সালে বাংলাদেশকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতার পর ওয়ানডেতে আর কোনও সাফল্য নেই শ্রীলঙ্কার। এরপর খেলা পাঁচ সিরিজের সবকটিতে হেরেছে তারা। আরও স্পষ্ট করে বললে, ২০১৬ সাল থেকে মাত্র একটিই ৫০ ওভারের সিরিজ জিতেছে লঙ্কানরা। ব্যর্থতার এই বৃত্ত ভাঙতে বিশ্বকাপের চেয়ে বড় মঞ্চ আর কী হতে পারে! ব্যর্থতার সঙ্গে আছে আবার বিতর্কও। হাথুরুসিংহে কোচ হওয়ার পর বারবার বদল হয়েছে অধিনায়ক। প্রত্যেক সিরিজেই হয়েছে কমবেশি নতুন স্কোয়াড। সেই ধারাবাহিকতা দেখা গেছে বিশ্বকাপ স্কোয়াডেও। হঠাৎই তারা দায়িত্ব দিয়েছে দিমুথ করুণারত্নেকে। অন্যদিকে বাদ দেওয়া হয়েছে দিনেশ চান্ডিমাল ও নিরোশান ডিকবেলার মতো ক্রিকেটারদের। সুযোগ পাননি আরও কয়েকজন নিয়মিত মুখ। এই পরিস্থিতিতে এবারের ক্রিকেট যুদ্ধে শ্রীলঙ্কাকে রাখা হচ্ছে আলোচনার বাইরে। তবে ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ মনে আছে নিশ্চয়? আলোচনায় বাইরে থাকা এই শ্রীলঙ্কাই বিশ্বকাপ জিতে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল ক্রিকেট বিশ্বকে। এবার হয়তো শিরোপার দৌড়ে তারা নেই, তবে ভালো পারফর্ম করে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের ‘শ্রী’ ফেরানোটা খুব জরুরি। 

চাপমুক্ত দেশটি যেকোনো অঘটন ঘটাতেই পারে বড় কোনো মঞ্চে। শিরোপা জেতার প্রত্যাশা ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসের মাটিতে থাকবে স্বাভাবিক ভাবেই। দুর্ভাগ্যের ভোগান্তি পোহাতে হবে অভিজ্ঞতার অভাবে।   

 

প্লেয়ার টু ওয়াচ 

লাসিথ মালিঙ্গা 

images (13)

আইপিএলে মুম্বাইয়ের ফাইনাল ম্যাচ জিতে দারুণ চাঙা রয়েছে এই শ্রীলঙ্কার বোলার। অবশ্য ম্যাচটি জিতার পেছনে মুল ভূমিকায় তিনিই ছিলেন। ডেথ ওভারে রহিত শার্মা বোলিং আক্রমণ দেন লাসিথের হাতে। অন্তিম মুহূর্তে জ্বলে উঠবে বলে সবাই আশা করেছেন। বিশ্বকাপের আগে সে কঠিন জানান দেন সে অভারেই। শেষ অভারে কাবু করেন চেন্নাই সুপার কিংসকে, ১ রানে জিতে যায় মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। 

             

৩৫ বছর বয়সী শ্রীলঙ্কান গতি তারকা লাসিথ মালিঙ্গা এবারের বিশ্বকাপের পর অবসর নেওয়ার কথা বলে রেখেছেন। এবারের আসর মিলিয়ে ৩টি বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন তিনি। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে বহুবার নিজের বোলিং ক্যারিশমা দিয়ে দলকে জিতিয়েছেন তিনি। ইনজুরির কারণে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার আগে ৩০ ম্যাচে শিকার করেছেন ১০১ উইকেট। ২১৮ ওয়ানডে ক্রিকেটে শিকার ৩২২ উইকেট। ৭৩ টি-টুয়েন্টিতে উইকেট ৯৭টি। দলের প্রয়োজনে অনেক সময় জ্বলে ওঠেছেন ডান-হাতি এই ফাস্ট বোলার। তবে তিনি দক্ষ বল হাতে; এর আগে বিশ্বকাপে দুবার হ্যাটট্রিকও করেছেন তিনি, যে রেকর্ডটি একমাত্র তারই দখলে। মালিঙ্গা ছাড়া অন্য কেউই এই রেকর্ডে এখনো ভাগ বসাতে পারেননি।

'প্যাভিলিয়ন ব্লগ’ একটি কমিউনিটি ব্লগ। প্যাভিলিয়ন ব্লগে প্রকাশিত লেখা, মন্তব্য, ছবি এবং ভিডিওর সম্পূর্ণ স্বত্ব এবং দায়দায়িত্ব লেখক এবং মন্তব্য প্রকাশকারীর নিজের। কোনো ব্যবহারকারীর মতামত বা ছবি-ভিডিওর কপিরাইট লঙ্ঘনের জন্য প্যাভিলিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গ হলেই কেবল সেই অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।