• বাংলাদেশ-আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ
  • " />

     

    আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে সিরিজে বিশ্রাম চেয়েছেন তামিম

    কদিন আগেই সাকিব আল হাসান বলেছিলেন, তামিমের এই মুহূর্তে একটু বিশ্রাম দরকার। বন্ধুর কথা সম্ভবত শুনেছেন তামিম, সামনের মাসে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য বিশ্রাম চেয়েছেন । এর মধ্যে বোর্ডের কাছে তামিম নিজের আবেদনের কথা বলেছেন বলেও জানিয়েছে ইএসপিএনক্রিকইনফো ও ক্রিকবাজ। প্রাথমিকভাবে বোর্ড তাতে সম্মতি দিয়েছে বলেও জানা গেছে।

    সময়টা একদমই ভালো যাচ্ছিল না তামিমের। এই বছরের শুরুটা অবশ্য খারাপ হয়নি তার, বিপিএলের ফাইনালে দুর্দান্ত একটা সেঞ্চুরির পর নিউজিল্যান্ডে দুই টেস্টে পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি। ত্রিদেশীয় সিরিজেও খারাপ করেননি, কিন্তু বিশ্বকাপে নিজেকে যেন হারিয়ে খুঁজতে লাগলেন। আট ইনিংসে ২৩৫ রান করেছেন। তবে রানের চেয়ে তার ব্যাট করার ধরন নিয়েই সমালোচনা হয়েছে বেশি। এর মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তুমুল সমালোচনার শিকার হয়েছেন তামিম।

    শ্রীলংকা সিরিজে পরিস্থিতি আরও বেশি খারাপ হয়েছে। প্রথমবারের মতো দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ওয়ানডেতে, তবে তিন ম্যাচেই শ্রীলংকার কাছে বিধ্বস্ত হয়েছে বাংলাদেশ। তামিম নিজেও একেবারে ব্যর্থ ছিলেন, তিন ম্যাচে সাকুল্যে পেয়েছেন ২১ রান। সেই সিরিজে বিশ্রামে ছিলেন সাকিব, পরে এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন সবারই বিশ্রামের প্রয়োজন আছে। বিশেষ করে তামিমের ব্যাপারে স্পষ্ট করেই বলেছিলেন, তার ভালো বিশ্রাম দরকার।

    সেই কথা হয়তো দাগ কেটেছে তামিমের মনে। এর আগে চোট ছাড়া কখনো জাতীয় দলের বাইরে না থাকলেও এবার নিজ থেকেই চেয়েছেন বিশ্রাম। যেটি বোর্ড অনুমোদন দিলে সামনের মাসে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ও জিম্বাবুয়ে-আফগানিস্তানের সঙ্গে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে থাকবেন না তামিম। সবকিছু ঠিক থাকলে ভারতের বিপক্ষে নভেম্বরে সিরিজে আবার হয়তো জাতীয় দলে ফিরতে পারেন। তামিমের এই বিশ্রাম চাওয়ার ব্যাপারও স্বীকার করেছেন ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান আকরাম খান, যদিও এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য জানা যায়নি।