• বাংলাদেশ-আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ
  • " />

     

    মুশফিক এলেন, ব্যাটিং করলেন, চলে গেলেন

    জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজ ফতুল্লায় বিসিবি একাদশ যে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলছে, তাতে কাল ঘোষিত দলে নাম ছিল না তার। সেটার দরকারও ছিল না বোধ হয়। কদিন আগেই তো আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেললেন মুশফিকুর রহিম, ছিলেন খেলার ভেতরেই। কিন্তু টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটিং করলেন ঠিকই। এরপর অবশ্য আর অপেক্ষা করেননি, আবার চলে গেছেন। তবে ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে হেরে গেছে তার দল, সেটা আর তার দেখা হয়নি।

    টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান দুই দলেরই ম্যাচ অনুশীলন হয়েছে। জিম্বাবুয়ের সেটা হয়নি বলে তারা আজ খেলছে প্রস্তুতি ম্যাচে। বিসিবি একাদশে বাংলাদেশ দলে ডাক পাওয়া আফিফ, ইয়াসিন মিশুদের রাখা হয়েছিল। টেস্ট দলে না থাকা সাব্বিরও ছিলেন। কিন্তু মুশফিকের থাকা ছিল চমকই। টেস্টে ব্যাটিং ভালো হয়নি একদমই। প্রথম ইনিংসে শুন্য রান করার পর দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হয়ে গিয়েছিলেন ২১ রানে।

     

    আজ মুশফিক নেমেছেন চার নম্বরে। সাইফ হাসান ও নাঈম শেখ দুজনেই শুরুটা পেয়েছিলেন। ১৯ বলে ২১ রান করে ফেলেছিলেন সাইফ, ১৪ বলে ২৩ রান করে ফেলেছিলেন নাঈম। মুশফিক অবশ্য টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মারার চেয়ে সম্ভবত নিজের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার ওপরেই জোর দিয়েছিলেন। সাব্বির রহমানকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৫৩ রান যোগ করেছেন বটে, তবে সেজন্য তাদের লেগেছে ৪৭ বল। দুজনকেই আবার এক ওভারে ফিরিয়েছেন শন উইলিয়ামস। ৩১ বলে ৩০ রান করে স্টাম্পড হয়ে গেছেন সাব্বির। এক বল পর ২৬ বলে ২৬ রান করে ফিরতি ক্যাচ দিয়েছেন মুশফিক। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রান করেছে বিসিবি একাদশ। তবে মুশফিক আর কিপিং করেননি, এরপরেই ফিরে গেছেন।

     

     

    সেই লক্ষ্য তাড়া করে  রানটা সহজেই টপকে গেছে জিম্বাবুয়ে। ব্যাটিংয়ে আজ খুব বেশি কিছু করার সুযোগ পাননি আফিফ, তবে পুষিয়ে দিয়েছেন বোলিং দিয়ে, ২৩ বলে ৩১ রান করে ফেলেছিলেন মাসাকাদজা, প্রথমের ফিরিয়েছেন তাকে। পরে ৪ রানে আউট করেছেন আরভিনকে। দুটিই ছিল স্টাম্পড। এরপর শন আরভিনকেও ফিরিয়ে দিয়েছেন ২ রানে, এবার এলবিডব্লু। ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়ে নিজের দাবিটাও জানান দিয়েছেন ভালোমতো।তবে বাকিরা তেমন কিছু করতে পারেননি। ব্রেন্ডন টেলরের ৪৪ বলে ৫৭ এবং টিমিকেন মারুমার ২৮ বলে ৪৬ রানে ১৬ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখে সেই রান টপকে গেছে জিম্বাবুয়ে।