• অন্যান্য খবর
  • " />

     

    'কুনজর' থেকে বাঁচতে মাঠে পাদ্রী ডাকলেন ম্যারাডোনা!

    ডিয়েগো ম্যারাডোনা জিমনেসিয়ার কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন দশ দিনও হয়নি। দশ বছর পর কোচ হিসেবে আর্জেন্টিনাতে ফেরার দুই সপ্তাহের মাঝেই অবশ্য বেশ কিছু পাগলাটে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। লিগের তলানিতে থাকা জিমনেসিয়াকে বাঁচানোর জন্য মাঠে পাদ্রী ডাকা, সবুজ রঙের ওপর নিষেধাজ্ঞাসহ বেশ কিছু অদ্ভুতুড়ে কাজ করেছেন ম্যারাডোনা। 

    মৌসুমের প্রথম পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই হেরে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে ছিল জিমনেসিয়া। দলকে অবনমনের হাত থেকে বাঁচাতেই ম্যারাডোনাকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দায়িত্ব নেওয়ার পর বেশ কিছু অদ্ভুতুড়ে কাজ করে সবার নজর কেড়েছেন ম্যারাডোনা। 

    দায়িত্ব নেওয়ার পর দলের সাথে অনুশীলনের প্রথম দিনেই ম্যারাডোনা অনুশীলন মাঠে ডেকে আনেন স্থানীয় এক পাদ্রীকে। ক্লাবের ওপর থেকে সব ধরনের ‘কুনজর’ দূর করতে ও ফুটবলারদের বিশেষ আশীর্বাদ করার জন্যই ওই পাদ্রীকে এনেছিলেন ম্যারাডোনা। 

    ম্যারাডোনা জিমনেসিয়া ক্লাবে নিষিদ্ধ করেছেন সবুজ রঙকে! অনুশীলন হোক কিংবা মূল ম্যাচ, ওই রঙের জার্সি, বুট কিংবা অন্য কিছু পরতে পারবেন না ফুটবলাররা। ১৩ ও ১৭ নম্বর জার্সিকেও নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে বর্তমান দলে ১৩ নম্বর জার্সি পরে খেলছেন হেসুস ভারগাস ও ১৭ নম্বর জার্সি পরে খেলছেন পাবলো ভেলাজকু। ম্যারাডোনা তাই লিগ কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি লিখে জানিয়েছেন, এই দুই ফুটবলারের জার্সি নম্বর বদল করে ওই দুই জার্সি নম্বরকে নিষিদ্ধ করার অনুমতি দেওয়া হোক। তবে এখনো সেই চিঠির জবাব আসেনি। 

    এছাড়াও ম্যারাডোনা দলে আনতে চাচ্ছেন সাবেক সাউদাম্পটন স্ট্রাইকার দানি ওসভালদোকে। ২০১৬ সালে ‘রকস্টার’ হওয়ার জন্য ফুটবলকে বিদায় বলেছিলেন ওসভালদো। ফুটবল ক্যারিয়ারে বেশ কয়েকবার বিতর্কেও জড়িয়েছিলেন তিনি। সতীর্থদের সাথে দুইবার হাতাহাতি করে সমালোচিত হয়েছিলেন। শেষবার বোকা জুনিয়র্সের হয়ে খেলার সময় ড্রেসিংরুমে তাকে ধূমপান করা অবস্থায় হাতেনাতে ধরেছিলেন কোচ গুইলেরমো স্কেলোটো। এই ঘটনায় ওসভালদোর সাথে চুক্তি বাতিল করে বোকা। 

     

     

    এতকিছু করেও অবশ্য জিমনেসিয়ার ভাগ্য ফেরাতে পারেননি ম্যারাডোনা। ম্যারাডোনার দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম ম্যাচে রেসিং ক্লাবের কাছে ২-১ গোলে হেরেছে জিমনেসিয়া। ম্যাচে প্রথমে এগিয়ে গিয়েছিল রেসিং, পরে সমতা ফেরায় জিমনেসিয়া। ৫৪ মিনিটে আবার এগিয়ে যায় রেসিং। এই গোলটাই শেষ পর্যন্ত জয়ের জন্য যথেষ্ট হয়েছে তাদের। 

    ম্যাচের পর ম্যারাডোনা বলছেন, তার দলের অন্তত ড্র করে মাঠ ছাড়া উচিত ছিল, ‘আমরা সমতা ফেরানোর কম চেষ্টা করিনি। ফুটবলে এমনটা হয়। আমার খুব কষ্ট হচ্ছে, আমরা রেসিংয়ের চেয়ে খারাপ খেলিনি। তবে তাদের মানসম্মত ফুটবলার অনেক আছে। তাদের কাছ থেকে বল নেওয়ার জন্য দ্বিগুণ দৌড়াতে হয়।’