• বাংলাদেশ-আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ
  • " />

     

    স্মরণীয় অভিষেকের পরেই চোটে পড়লেন বিপ্লব

    অভিষেকে ঠিক তোলপাড় ফেলে দেওয়া যাকে বলে, সেটা ঠিক হয়নি। তবে আমিনুল ইসলাম বিপ্লব যা করেছেন, সেটা বিপ্লব না হলেও বেশ চোখে পড়ার মতোই। একজন লেগ স্পিনারের জন্য বাংলাদেশের হাপিত্যেশ তো অনেক দিনের, বিপ্লব তার কিছুটা হলেও কমিয়েছেন কাল। তবে এক দিনের মধ্যেই মুদ্রার উলটো পিঠ দেখতে হয়েছে তাকে। কাল বোলিং করার সময়েই আঙুলে ব্যথা পেয়েছেন, পরে তিনটি সেলাই লেগেছে হাতে। এক দিন পরেই আগানিস্তানের বিপক্ষে ড্রেস রিহার্সেল, সেখানে নামা নিয়ে এখন ঘোর সংশয়।

    কাল ঘটনাটা ঘটেছে ম্যাচের মধ্যেই। হ্যামিল্টন মাসাকাদজার একটা শট ঠেকাতে গিয়ে বাঁ হাতে ব্যথা পেয়েছিলেন বিপ্লব। সেই চোট নিয়ে বল করে গেছেন পরে, মাসাকাদজাকেও শেষ পর্যন্ত এলবিডব্লু করেছেন। তবে ম্যাচ শেষে যেতে হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে, সেখানে তিনটি সেলাই নিতে হয়েছে হাতে।

     

     

    আজ যখন সাংবাদিকদের সঙ্গে হোটেল র‍্যাডিসনে আলাপ করছিলেন, তখনও বিপ্লবের বাঁ হাতে সেলাই ছিল। এক দিন পরেই যেহেতু আফগানিস্তানের সঙ্গে ম্যাচ, সেখানে তার নামা নিয়েও আছে প্রশ্ন। এ নিয়ে জানতে চাওয়া হলে বিপ্লব আশার বাণী শোনালেন, ‘ হাতে মাসাকাদজার একটা বল লেগেছিল। সেভ করতে পারেনি ওটা হাতে লেগেছিল। ফিল্ডিং করার সময়। হাতে তিনটা সেলাই পড়ছে। এখন আল্লাহর রহমতে ভালো লাগছে। পেইন আগের থেকে কমেছে। ফিজিও যেটা বলছে সেটা করছি। টিম ম্যানেজম্যান্ট যেটা বলবে সেটা হবে। আমার কাছে ভালো মনে হচ্ছে।’

     

     

    বিসিবি থেকে এখনও তার বদলি চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলা হয়নি। বা চোট নিয়েও জানানো হয়নি কিছু। যদিও চিকিৎসক ডা দেবাশীষ চৌধুরী বিপ্লবের নামার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেননি। তবে ফাইনালের কথা মাথায় রেখে হয়তো তাকে শনিবার নামানোর ঝুঁকি নাও নিতে পারে বাংলাদেশ।