• ফুটবল, অন্যান্য
  • " />

     

    রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো ফিফার বর্ষসেরা মেসি

    ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হয়েছেন আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার লিওনেল মেসি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও ভার্জিল ভ্যান ডাইককে পেছনে ফেলে ষষ্ঠবারের মতো বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হলেন ৩২ বছর বয়সী ফুটবলার। সব শেষ পুরস্কারটি জিতেছিলেন ২০১৫ সালে। চার বছর অপেক্ষার পর জিতলেন আবার, ছাড়িয়ে গেলেন রোনালদোকেও।

    ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কার দ্য বেস্ট নামকরণের পর থেকেই আর সেরার পুরস্কার জেতা হয়নি মেসির। বিশেষ করে ভার্জিল ভ্যান ডাইক ইউয়েফার বর্ষসেরা নির্বাচিত হওয়ার পর ফিফার বর্ষসেরা হওয়ার দৌড়ে তিনিও এগিয়ে ছিলেন কিছুটা। কিন্তু অনেকটা চমক ঘটিয়েই বর্ষসেরা হলেন মেসি।

    গেল মৌসুমে ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন মেসি। ছিলেন চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতাও। ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে ৫৪ ম্যাচে অবিশ্বাস্য ৫১টি গোল তার, সঙ্গে আছে ২২টি  অ্যাসিস্টও। ক্লাবকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতাতে না পারলেও লা লিগা জিতিয়েছেন মেসি। মূলত পুরো মৌসুম জুড়ে দুর্দান্ত ফর্মে থাকার জন্যই আরও একবার বর্ষসেরার পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।


     

    মেসি পেয়েছেন মোট ৪৬ পয়েন্ট, দ্বিতীয় হয়েছেন ভ্যান ডাইক। ৩৮ পয়েন্ট পাওয়া ভ্যান ডাইকের চেয়ে দুই পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় হয়েছেন রোনালদো। ২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২ ও ২০১৫ সালেও বর্ষসেরা হয়েছিলেন মেসি। তখন অবশ্য ব্যালন ডি'অর ও ফিফা একসঙ্গে মিলেই ঘোষণা করতে বর্ষসেরার নাম। ২০১৬ সাল থেকে ফিফার দ্য বেস্ট নামকরণের পর প্রথম দুইবার বর্ষসেরা ফুটবলার হন রোনালদো। শেষবার রোনালদো-মেসির টানা দশবারের আধিপত্যে ছেদ ঘটিয়ে লুকা মদ্রিচ হয়েছিলেন বর্ষসেরা ফুটবলার। 

    ইতালির মিলানে ফিফার দ্য বেস্ট গালাতে সেরাদের পুরস্কার দেওয়া হয়েছে আরও কয়েকটি। বর্ষসেরা কোচ হয়েছেন লিভারপুলের ইউর্গেন ক্লপ। লিভারপুলের চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী ও ব্রাজিলের হয়ে কোপা আমেরিকা জেতা গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার অনুমিতভাবেই পেয়েছেন বর্ষসেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার। মেয়েদের সেরা ফুটবলার হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রকে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জেতানো অধিনায়ক মেগান রাপিনো। মেয়েদের সেরা গোলরক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন নেদারল্যান্ডসের  সারা ভিনেন্দাল। 

     

     

    মেসি মনোনয়ন পেয়েছিলেন পুস্কাস অ্যাওয়ার্ডের জন্যও। কিন্তু বছরের সেরা গোলের পুরস্কারটি অধরা থেকে গেছে তার এবারও। ফেহেরবারের দানি সোরির গোলটি নির্বাচিত হয়েছে বছরের সেরা। হাঙ্গেরির লিগে ফেরেঙ্কভারোসের বিপক্ষে ওভারহেড কিকে গোলটি করেছিলেন তিনি। ফেয়ার প্লে পুরস্কার জিতেছেন লিডসের মার্সেলো বিয়েলসা।