• ফুটবল, অন্যান্য
  • " />

     

    রাজার হালেই নিউওয়েলসে ফিরলেন ম্যারাডোনা

    ক্যারিয়ারের শেষদিকে নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে খেলেছিলেন পাঁচ ম্যাচ। প্রায় ২৫ বছর পর নিউওয়েলসের মাঠে ফিরলেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা, আরেক আর্জেন্টাইন ক্লাব জিমনেসিয়ার ম্যানেজার হয়ে। খেলোয়াড়ি জীবনে নিউয়েলসের হয়ে গুটিকয়েক ম্যাচ খেললেও ‘এল ডিয়েগো’কে ভোলেনি তারা। ম্যাচের দিন ডাগআউটে ম্যারাডোনার বসার জন্য রীতিমত এক সিংহাসনই উপহার দিয়েছিল তারা। 

    নিউওয়েলসের লাল কালোতে রাঙা সিংহাসনে ম্যাচের আগে অটোগ্রাফ দিয়েছেন ম্যারাডোনা। ডাগআউট থেকে একটু আগে টাচলাইনের একেবারে সামনে বসে ম্যাচ দেখেছেন তিনি। জন্মদিনের একদিন আগে ম্যারাডোনার রাজার হালে নিউওয়েলসে ফেরার দিনে বড় জয় পেয়েছে জিমনেসিয়া, নিউওয়েলসকে তাদেরই মাঠে ৪-০ গোলে হারিয়েছে ম্যারাডোনার দল। ম্যারাডোনাকে রাজাসুলভ অভ্যর্থনা দিতে ম্যাচের আগে থেকেই রীতিমত উঠেপড়েই লেগেছিল নিউওয়েলস।

     

     

    ম্যাচের দিন অধিনায়ক ম্যাক্সি রদ্রিগেজ যে আর্মব্যান্ড বাহুতে জড়িয়েছিলেন, তাতে খচিত ছিল নিউওয়েলসের লাল কালো জার্সিতে ম্যারাডোনার চেহারা। শুধু সিংহাসনই নয়, ম্যাচের আগে ম্যারাডোনাকে ফ্রেম করা পেইন্টিং উপহার দিয়েছে নিউওয়েলস; সাথে ছিল তাদের বর্তমান জার্সিও। কিক অফের আগে নিউওয়েলস সমর্থকদের সামনে নেচেছেন ম্যারাডোনা, গলা মিলিয়েছেন তার উদ্দেশ্যে গাওয়া গানেও।

    অবনমনের আশঙ্কায় ভুগতে থাকা জিমনেসিয়ার হয়ে শিরোপাপ্রত্যাশী নিউওয়েলসের মাঠে ম্যাচের আগে যে হাসি ছিল ম্যারাডোনার মুখে, ম্যাচ শেষে সেটা যেন বিস্তৃত হয়েছে আরও। টেবিলের একেবারে তলানীতে থাকা ম্যারাডোনার দল গত ২৩ বছরে ক্লাবের সবচেয়ে বড় জয়ও এসেছে ম্যারাডোনার হাত ধরেই। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন