• বিপিএল ২০১৯
  • " />

     

    পিছিয়ে গিয়ে ১১ ডিসেম্বর শুরু বঙ্গবন্ধু বিপিএল, প্লেয়ারস ড্রাফট ১৭ নভেম্বর

    বিপিএলের বিশেষ সংস্করণ ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ শুরু হবে ১১ ডিসেম্বর। এর আগে বিপিএল শুরুর তারিখ হিসেবে জানানো হয়েছিল ৬ ডিসেম্বরের কথা। ফলে পাঁচদিন পিছিয়ে যাচ্ছে এটি। এর আগে ৮ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে বিপিএল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৭ নভেম্বর হবে এ আসরের ড্রাফট, এর আগে সম্ভাব্য তারিখ হিসেবে জানানো হয়েছিল ১১ বা ১২ নভেম্বরের কথা। বিপিএল নিয়ে বিসিবির মিটিং শেষে এসব জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। 

    বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এ টি-টোয়েন্টি লিগ এবার আয়োজন করছে বিসিবি। ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির সঙ্গে লভ্যাংশ ভাগাভাগিসহ কিছু ব্যাপারে বনিবনা না হওয়ায় নিজেদের উদ্যোগেই এ আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি। পরে ক্রিকেটারদের ধর্মঘটে ১৩ দফা দাবির মাঝে একটি ছিল- এরপরের বার থেকে আবারও ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক পদ্ধতিতে ফিরে যেতে হবে বিপিএলকে। সে দাবির বিপরীতে বিসিবি বলেছিল, সেটি তারা করবেন। 

    “অত্যন্ত আনন্দিত একটা ব্যাপারে, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর কাউন্টডাউন অফিশিয়ালি শুরু হবে ৮ তারিখে (ডিসেম্বরের)। এবং প্রথমদিনই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এসে উদ্বোধন করবেন বলে সম্মতি দিয়েছেন, এটা একটা ভাল খবর যে ক্রিকেট দিয়েই শুরু হবে (বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন)”, বলেছেন নাজমুল। 

    বিপিএলে আগের মতো ৭টি দলই খেলবে এবারও, তবে দলগুলির নাম চূড়ান্ত করেনি বিসিবি।  “৭টি দল খেলবে। ৫টি স্পন্সর ঠিক করে ফেলেছি, যাদেরকে দিতে পারি বা দেব। দুটি খালি আছে, সেসব কাউকে দেব, তবে সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনা বিসিবি সে দুটি নিজেই চালাবে।”   


    আরও পড়ুনঃ বিপিএলে থাকছে না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি : কীভাবে, কেন?


     

    বিপিএল সহ সবখানে দেশীয় কোচদের প্রাধান্য দেওয়ার একটি দাবিও ছিল ক্রিকেটারদের। তবে হেড কোচ হিসেবে চারজন কোচ এরই মাঝে ঠিক করে ফেলেছে বিসিবি, নাজমুল ইঙ্গিত দিয়েছেন তারা বিদেশী হবেন- এমন সম্ভাবনাই বেশি, “বেশ কিছু কোচের সঙ্গে কথা চূড়ান্ত করা হয়েছে। চারজনের মতো, ভাল ভাল কোচ। চুক্তিতে আসেনি তারা এখনও, ফলে নাম বলতে পারছি না। সবচেয়ে নামকরা যারা আছে, জাতীয় দলের জন্য যাদেরকে বিবেচনা করা হয়েছিল তেমন কোচই।”

    স্টিভ রোডস চলে যাওয়ার পর হেড কোচ হওয়ার দৌড়ে ছিলেন পরে দায়িত্ব পাওয়া রাসেল ডমিঙ্গো ছাড়া মাইক হেসন, চন্ডিকা হাথুরুসিংহে, মাইক হেসন। 

    উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বিসিবির ইতিহাসের সবচেয়ে ‘জাঁকজমক’ হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি, “যেটা বলতে পারি, একসাথে এতকিছু বাংলাদেশে এর আগে হয়নি। ইচ্ছা তো আছে অনেক কিছুরই, দেখা যাক।” 

    এর আগে ১১ জানুয়ারি ফাইনাল হওয়ার কথা থাকলেও পিছিয়ে যাওয়া সময়ে সেটি কবে হবে, এখনও নিশ্চিত করা হয়নি সেটি।