• ফুটবল, অন্যান্য
  • " />

     

    করোনা ভাইরাসে পিছিয়ে গেল চায়নিজ লিগও

    করোনা ভাইরাসের কারণে চীন তাদের ঘরোয়া ফুটবল লিগের সর্বোচ্চ স্তরের লিগের সময়সূচী পিছিয়ে দিয়েছে।ফেব্রুয়ারির ২২ তারিখ শুরু হওয়ার কথা ছিল চায়নিজ সুপার লিগ। নতুন দিন তারিখও নির্ধারণ করেনি চীন। লিগ তাই পিছিয়ে গেছে অনির্দিষ্টকালের জন্য।

    করোনা ভাইরাস এরই মধ্যে মহামারি আকার ধারণ করেছে চীনে। চীন ছাড়াও বিশ্বের আরও ১৬টি দেশেও ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। চীনেই এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৭১ জন প্রাণ হারিয়েছে।

    অবশ্য শুধুমাত্র ফুটবল নয়। আরও বেশ কয়েকটি স্পোর্টিং ইভেন্টেরই সময় পিছিয়ে নিতে হয়েছে চীনকে। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে পুরুষদের আল্পলাইন স্কিংয়ের ওয়ার্ল্ডকাপ রেস হওয়ার ছিল। সেটি বাতিলই করা হয়েছে। এক বছর পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে বিশ্ব ইনডোর অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা। যেটি চীনের নিয়াংজিংয়ে ফেব্রুয়ারিতেই হওয়ার কথা ছিল। ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেটিক্স বলছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শে ১২ মাস পেছানো হয়েছে ইনডোর অ্যাথলেটিক্সের সবচেয়ে বড় আয়োজন। ফর্মুলা ওয়ান কর্তৃপক্ষ বলছে চীনের অবস্থা তারা "গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ" করছেন। এপ্রিলে সাংহাইয়ে গ্রা পি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

    ফুটবল লিগ পেছানোর কারণ হিসেবে চীনা কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে যে ব্যবস্থা  নেওয়া হয়েছে সেই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে লিগের সময় পিছিয়ে দিয়েছেন তারা। চীনের নারী ফুটবল দল অবশ্য পড়েছে আরও বড় ঝামেলায়। এই মুহুর্তে অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থান করছেন তারা। তবে ৪৪ বছর বয়সী এক চীনা নাগরিকের অস্ট্রেলিয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর হোটেলবন্দী আছে পুরো দল। চীন নারী ফুটবল দলের থাইল্যান্ডের সঙ্গে অলিম্পিক ফুটবলের বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচ হওয়া নিয়ে আছে সংশয়। ওই ম্যাচের টিকেট বিক্রিও বাতিল করেছে টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ।