• লা লিগা
  • " />

     

    গ্রিযমান-রবার্তোর গোলে গেটাফেতে বার্সার মুক্তি

    ফুলটাইম 
    বার্সেলোনা ২-১ গেটাফে 


    বিরতির আগে দুই গোল দিয়ে কাজ অনেকটাই সেরে রেখেছিল বার্সেলোনা। কিন্তু চাপ যেন তাদের নিত্যসঙ্গী হয়ে গেছে গত কয়েক বছরে। সে ধারা চালু থাকল গেটাফের বিপক্ষেও। অবশ্য গেটাফের বিপক্ষে বার্সাকে জিততে বরাবরই ঘাম ঝরাতে হয়েছে। নিয়ম মেনেই তাই ঘরের মাঠে দুই গোলের লিড নিয়েও দ্বিতীয়ার্ধে চাপমুক্ত থাকা হয়নি বার্সার। ৬৬ মিনিটে গোল হজম করে শেষ পর্যন্ত কাজটা কঠিন বানিয়েই গেটাফেকে হারিয়েছে কিকে সেতিয়েনের দল। 

    গেটাফে ন্যু ক্যাম্পে এসেছিল টানা ৪ ম্যাচ জিতে। ওই ৪ ম্যাচে একটিও গোল হজম করেনি তারা। ৩৩ আর ৩৯ মিনিটের দুই গোল তাই স্বস্তি হয়ে এসেছিল বার্সার জন্য। প্রথম গোলটি করেছেন অ্যান্টোয়ান গ্রিযমান। পরেরটি সার্জি রবার্তো। বার্সার প্রথম গোলের উৎস ছিলেন লিওনেল মেসি। গেটাফের অ্যাটাকিং থার্ডে ফাতি-মেসির দ্রুত দুইটি পাসে বক্সের ভেতর ঢুকে গিয়েছিলেন গ্রিযমান। এর পর দারুণ এক বডি ফেকে এগিয়ে আসা গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে বাম পায়ের নিচু চিপে গোল করেন ফ্রেঞ্চম্যান। লা লিগায় টানা ৫ ম্যাচ গোলহীন থাকার খরাও তাতে কাটে তার।

     


    বার্সার খেলোয়াড়রা এদিন মাঠে নেমেছিলেন উসমান ডেম্বেলের জার্সি গায়ে। নতুন করে ইনজুরিতে পড়ে ছয় মাসের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে গেছেন তিনি। অবশ্য ইনজুরি বার্সার পিছু ছাড়েনি এই ম্যাচেও। ২২ মিনিটে জর্দি আলবা চোট নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আলবার ব্যাপারে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি। 

    আলবার জায়গায় নেমে জুনিয়র ফিরপো অবশ্য আলো কেড়েছেন। বাম প্রান্ত থেকে তার দারুণ ক্রসে থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সার্জি রবার্তো। অবশ্য এসব কিছুর আগে বার্সা ম্যাচে পিছিয়েও যেতে পারত। ভিএআরের কল্যাণে তখন ভাগ্য ফিরেছিল তাদের। ম্যাচের ২৪ মিনিটে গেটাফের অ্যালান নিয়ম বল ঢুকয়ে দিয়েছিলেন বার্সার জালে। তবে ভিএআরে পরে রেফারি বাতিল করেছেন গোল। নিয়ম বলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার আগে বার্সার বক্সের ভেতর স্যামুয়েল উমতিতিকে ফাউল করেছেন। নিয়মমাফিক তাই গোলও বাতিল হয়েছিল। 

    বার্সা দুই গোলের লিড হারিয়েছে অ্যানহেল রদ্রিগেজের দারুণ এক শটে। ডান প্রান্ত থেকে আসা ক্রসে ডান পায়ের দারুণ ভলিতে গোল করে রদ্রিগেজ দলকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। গেটাফে এর কিছুক্ষণ বাদে সমতায়ও ফিরতে পারত। আমাথ এনদায়ির পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে করা হেড মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগান তিন দফার চেষ্টায় ফেরান গোললাইন থেকে। হাঁপ ছেড়ে বাঁচে বার্সাও। 

    দলের কাজটা অবশ্য সহজ করার ভালো দুইটি সুযোগ পেয়েছিলেন গ্রিযমান। তবে প্রথমার্ধের মতো আর সফল হওয়া হয়নি তার। ৭৪ মিনিটে গোলের ১০ গজ দূর থেকে ডান পায়ে বল মেরেছেন আকাশে উড়িয়ে। আর ৩ মিনিট পর মেসির পাস থেকে আড়াআড়ি ফিনিশ করতে গিয়েও লক্ষ্য মিস করেছেন গ্রিযমান।

    মেসি এদিন গোলের সামনে খুব বেশি প্রভাব রাখেননি বার্সার হয়ে। ম্যাচের একেবারে শেষদিকে বক্সের বাইরে থেকে একটি শট করেছিলেন। তবে সেটাও অল্পের জন্য গেছে বাইরে দিয়ে। বার্সার গোল পাওয়া না হলেও শেষদিকে বলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখে আর পয়েন্ট খোঁয়াতে হয়নি বার্সার। আপাতত সেটাই তাদের জন্য স্বস্তির খবর। ২৪ ম্যাচ শেষে বার্সার পয়েন্ট ৫২। আগামীকাল রিয়াল মাদ্রিদ লেভান্তের বিপক্ষে জিতে গেলে আবারও তাদের চেয়ে ৩ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়বে বার্সা।  
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন