• ফুটবল, অন্যান্য
  • " />

     

    সৃজনশীল অনুশীলনে ঘরে বসে 'নায়ক' ১১ বছর বয়সী কিশোর

    প্রায় গোটা দুনিয়াই এখন লকডডাউন। ঘরে বসে উৎকণ্ঠায় দিন পার করতে করতে কেউ কেউ আবার হয়ে উঠেছেন সৃজনশীল। আয়ারল্যান্ডের ১১ বছর বয়সী নাথান অবশ্য তার সৃজনশীলতাটাতা নিয়ে গেছেন অন্যমাত্রায়। করোনাভাইরাসের কারণে ঘরের বাইরে যেতে মানা। তাই ঘরে বসে অভিনব কায়দায় গোলকিপিং অনুশীলন করে রাতারাতি 'নায়ক' বনে গেছেন এই কিশোর।

    বাড়ির উঠানে নিজেই বল মেরে, আবার সেই বল ধরার নতুন কায়দা আবিষ্কার করেছেন নাথান। তার মা সেই অনুশীলনের ভিডিও ধারণ করে পোস্ট করেছিলেন টুইটারে। এর পর কয়েকদিনের ব্যবধানে সেই ভিডিওর ভিউ ছাড়িয়ে গেছে এক কোটি।


    সাবেক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিংবদন্তী গোলরক্ষক পিটার স্মাইকেলও সেই ভিডিও রিটুইট করেছেন। আর বসনিয়ান গোলরক্ষক আসমির বেগোভিচ নাথানের শৈলীতে মুগ্ধ হয়ে তাকে এরই মধ্যে গ্লাভস উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের স্প্যানিশ গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়ার চোখও এড়ায়নি এই ভিডিও। তার সতীর্থ হুয়ান মাতাও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নাথানকে অনুশীলনের আমন্ত্রণ দিয়ে রেখেছেন!

    নাথানের প্রিয় ক্লাব অবশ্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নয়, লিডস ইউনাইটেড, একসময় এই ক্লাবের হয়ে খেলার স্বপ্ন দেখে সে। সেই ক্লাবের পক্ষ থেকেও দারুণ একটি সুসংবাদ পেয়েছে নাথান, ক্লাবের অফিসিয়াল টুইটার থেকে গোলকিপার ইলান মেসলিয়ের বর্তমান অচলাবস্থা কেটে গেলে তাকে লিডসের ট্রেনিং গ্রাউন্ড ‘থর্প আর্চ’-এ অনুশীলনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

    টুইটারে ভিডিওটি পোস্ট করে তার মা ক্যাপশনে লিখেছিলেন, “যখন আপনি একজন গোলকিপার এবং ঘরের একমাত্র সন্তান, তাও আবার সেলফ-আইসোলেশনে; চেষ্টা করছেন কিভাবে নিজের অনুশীলন চালিয়ে নেওয়া যায় (হাসি)।”